গডসে ‘দেশপ্রেমী’: ক্ষমা চাইলেন প্রজ্ঞা

প্রকাশ : ১৮ মে ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধীর হত্যাকারী নাথুরাম গডসেকে দেশভক্ত বলে ফের বিতর্কে জড়ালেন ভোপালের বিজেপি প্রার্থী প্রজ্ঞা সিংহ ঠাকুর ওরফে সাধ্বী প্রজ্ঞা। দলের চাপে শেষ পর্যন্ত ক্ষমা চেয়েছেন তিনি। তাতে অবশ্য বিজেপির অস্বস্তি কাটেনি। প্রজ্ঞার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া উচিত বলে জানিয়েছেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ।

সম্প্রতি নাথুরাম গডসেকে ‘স্বাধীন ভারতের প্রথম হিন্দু জঙ্গি’ বলায় দক্ষিণী অভিনেতা ও রাজনীতিবিদ কামাল হাসানকে নিয়ে জলঘোলা কিছু কম হয়নি। এর উত্তরে ‘হিন্দু কখনো জঙ্গি হতে পারে না’ বলে মন্তব্য করেছিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গত বৃহস্পতিবার আরো এক ধাপ এগিয়ে গডসেকে ‘দেশভক্ত’ বলে বসলেন সাধ্বী প্রজ্ঞা। এ দিন শেষ দফা ভোটের প্রচারে মালওয়া গিয়েছিলেন নেত্রী। সেখানে তিনি বলেন, নাথুরাম গডসে দেশভক্ত ছিলেন, দেশভক্ত আছেন এবং দেশভক্ত থাকবেন। যারা তাকে সন্ত্রাসবাদী বলছেন, তাদের ভেবে দেখা উচিত। এই ভোটেই তারা উপযুক্ত জবাব পাবেন।

প্রজ্ঞার এই মন্তব্যে আজ নতুন করে বিতর্ক ছড়ায়। ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লা টুইট করে বলেন, জাতির জনকের খুনি যদি দেশপ্রেমী হন তা হলে মহাত্মা গান্ধীকে রাষ্ট্রদ্রোহী বলতে হয়। সরব হয় কংগ্রেসও। ভোপালের কংগ্রেস প্রার্থী দিগবিজয় সিংহ এ দিন বলেন, নাথুরাম গডসেকে মহিমান্বিত করাটা মোটেই দেশপ্রেমের পরিচয় নয়। তা রাষ্ট্রদ্রোহের নামান্তর। রাজ্য বিজেপি, মোদিজি, অমিতজির জবাব দিন। দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চান। কংগ্রেসের অন্য নেতারাও এর প্রতিবাদ জানান। প্রজ্ঞার মন্তব্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যঙ্গের ঝড় ওঠে। এক টুইটার ব্যবহারকারীর বক্তব্য, মোদি, শাহ আর বিজেপির পর্দা ফাঁস হয়ে গেছে। আসল চেহারা বেরিয়ে পড়েছে।

মালেগাঁও হামলায় নাম জড়ানো প্রজ্ঞার নানা মন্তব্যকে ঘিরে আগেও অস্বস্তিতে পড়েছে বিজেপি।

 

"