প্রচারের সময় কমানোয় বিরোধী নিশানায় ইসি

প্রকাশ : ১৮ মে ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

অমিত শাহের পদযাত্রা ঘিরে তা-ব ও তার জেরে পশ্চিমবঙ্গে ভোট প্রচারের সময় কমিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে দাঁড়ালেন মায়াবতী, অখিলেশ যাদবসহ বিভিন্ন আঞ্চলিক দলের নেতারা। নির্বাচন কমিশনের এমন পদক্ষেপের সমালোচনা করেছে কংগ্রেসও।

গতকাল শুক্রবার সকালে মায়াবতী বলেন, নির্বাচন কমিশন পশ্চিমবঙ্গে প্রচারের সময় এমনভাবে ছেঁটে দিয়েছে, যাতে নরেন্দ্র মোদি দুটি জনসভা করতে পারেন। কেন বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হলো না? এটা অত্যন্ত অন্যায় এবং চাপের মুখে পড়ে কমিশন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিএসপি নেত্রীর মন্তব্য, মোদি, অমিত শাহ এবং বিজেপির নেতারা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করেছেন। এটা সুপরিকল্পিতভাবে করা হয়েছে। খুব বিপজ্জনক প্রবণতা তৈরি হয়েছে, যা দেশের প্রধানমন্ত্রীকে মানায় না।

একই সুর অন্যান্য বিরোধীদলের নেতাদের কথাতেও। কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা সাংবাদিক বৈঠক করে বলেন, রাত ১০টায় নিষেধাজ্ঞা জারি করে কমিশন আসলে মোদিকে বিদায়ী উপহার দিয়েছে। বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে তা-ব হচ্ছে আর কমিশন নখদন্তহীন হয়ে বসে রয়েছে। মোদির সুবিধা দেখছে। অটলবিহারী বাজপেয়ী সরকারের মন্ত্রী যশবন্ত সিনহা বলেন, সমস্ত বিরোধী দলগুলোর উচিত মমতার সঙ্গে থাকা। পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি মমতাকে ‘শেরনি’ বলেছেন। মমতার পাশে দাঁড়িয়ে টুইট করেছেন ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ওমর আবদুল্লা। বলেছেন, লোকসভা ভোটে এবার পশ্চিমবঙ্গ থেকে বিরাটভাবে জয়ী হবে তৃণমূল। এই বিষয় নিয়ে তার পাশে দাঁড়ানোর জন্য কংগ্রেস এবং অন্য দলগুলোকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মমতা।

 

"