নিশ্চিত ভাইবোন

ভালোবাসারই জিত হবে

প্রকাশ : ১৪ মে ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

দিল্লির বুকে দাঁড়িয়ে ভোটের দিন সকালে নরেন্দ্র মোদিকে জোড়া হামলা করলেও কংগ্রেস কত আসন পাবে, তা নিয়ে অবশ্য ভাই বা বোন কেউই কোনো অনুমান জানাতে চাইলেন না।

খান আবদুল গফ্ফর খানের ভাই গান্ধীবাদী স্বাধীনতা সংগ্রামী খান আবদুল জব্বার

খানের নামে দিল্লিতে তৈরি হয়েছিল ‘খান মার্কেট’, যা এখন অভিজাত বাজারের

একটি। নামিদামি লোকেদের পাশাপাশি

গান্ধী পরিবারের সদস্যরাও মাঝেমধ্যে যান সেখানে। এক সাক্ষাৎকারে এই বাজারকেই রাজনীতির কেন্দ্রে নিয়ে এলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

বিরোধীদের আক্রমণের জবাব দিতে তিনি বলেন, দিল্লির ‘খান মার্কেট গ্যাং’ মোদির ভাবমূর্তি তৈরি করেনি, লাটিয়েনস দিল্লিও নয়। ৪৫ বছরের মোদির তপস্যাই এই ভাবমূর্তি তৈরি করেছে। তা সে ভালো হোক বা মন্দ। রাজধানী দিল্লিতে ভোট হয়েছে। ভোট দেন সোনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধী ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। মোদি-অমিত শাহদের ভোট আগেই হয়ে গেছে গুজরাতে। কয়েক দিন আগে প্রিয়াঙ্কা মোদিকে চ্যালেঞ্জ ছুড়েছিলেন ‘আমি দিল্লির মেয়ে’ বলে। সেদিন মোদির কথা শুনে ফের হামলা করলেন প্রিয়াঙ্কা। এমনকি রাহুলও।

ভোট দিয়ে বেরিয়ে এসে মোদির ‘তপস্যা’র কথার জবাবে প্রিয়াঙ্কা বলেন, শুধু ৫০ ঘণ্টা তপস্যা করলেও এত ঘৃণা নিয়ে কথা বলতেন না প্রধানমন্ত্রী। বিজেপি সরকার যে বিদায় নিচ্ছে, সেটা স্পষ্ট। জনতার আক্রোশ ভোটে প্রতিফলিত হবে। কালো টাকা ফিরিয়ে প্রত্যেককে ১৫ লাখ টাকা দেওয়া, বছরে ২ কোটি রোজগার, কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করার বিষয়ে জবাব দেন না প্রধানমন্ত্রী। রাহুল যে বিতর্কের চ্যালেঞ্জ ছুড়েছিলেন, তারও জবাব দেন না। বক্তৃতায় শুধু এদিক-ওদিক কথা বলেন।

অজয় মাকেনের সঙ্গে ভোট দিয়ে বেরিয়ে এসে রাহুলও এক হাত নেন প্রধানমন্ত্রীকে। বলেন, তিন থেকে চারটি বিষয় নিয়ে এবারের ভোটে লড়েছে কংগ্রেস। সবকটি জনতার সঙ্গে জড়িত বিষয়। সবচেয়ে জরুরি বেকারত্ব, তারপরে কৃষকদের অবস্থা ফেরানো, গব্বর সিংহ ট্যাক্সের মাধম্যে অর্থনীতির লোকসান আটকানো, আর চতুর্থ দুর্নীতি রাফাল-অনিল আম্বানী। লড়াই ভালো হয়েছে। নরেন্দ্র মোদি ঘৃণা ব্যবহার করেছেন, আর আমরা ভালোবাসা। আমি নিশ্চিত, ভালোবাসারই জিত হবে। মোদি অবশ্য গতকাল সোমবার রাহুলকে জবাব দিয়ে বলেছেন, মুখে ভালোবাসার কথা বলে প্রতিদিন গালি দেওয়া হচ্ছে আমাকে। ঘৃণাকে আড়াল করতেই ভালোবাসা নিয়ে বড়াই করা হচ্ছে। রাহুল বললেন, জনতাই মালিক। জনতা যা রায় দেবে, মাথা পেতে নেব। কিন্তু মোদি যে লাগাতার গান্ধী পরিবারকে আক্রমণ করে যাচ্ছেন, তার জবাব দিতে ছাড়লেন না প্রিয়াঙ্কা। মোদির ‘তপস্যা’র সূত্র ধরেই বললেন, আমি যখন সাধনা করতে যাই, আমার গুরুজি ভগবান বুদ্ধের কথা শোনান। বুদ্ধের কাছে এক ক্ষিপ্ত ব্যক্তি আসেন, কিন্তু বুদ্ধ তাকে শান্ত থাকারই পরামর্শ দেন।

 

"