লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

ভোট দিলেন ভারতের রাষ্ট্রপতি

দিল্লির বুথে ১১১ বছরের ভোটার

প্রকাশ : ১৩ মে ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বিহারের আটটি, হরিয়ানার ১০টি, ঝাড়খ-ের চারটি, মধ্যপ্রদেশের আটটি, উত্তরপ্রদেশের ১৪টি, পশ্চিমবঙ্গের আটটি এবং দিল্লির সাতটি আসনে গতকাল রোববার ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে। কড়া নিরাপত্তার মধ্যে হয়েছে ষষ্ঠ দফার ভোট। ছয়টি রাজ্য এবং জাতীয় রাজধানী অঞ্চল দিল্লির মোট ৫৯টি আসনে ভোটগ্রহণ হয়েছে শান্তিপূর্ণভাবেই। পশ্চিমবঙ্গে বিক্ষিপ্ত কয়েকটি ঘটনা ছাড়া বড় কোনো অশান্তির খবর নেই।

সকাল ৯টা পর্যন্ত ভোট পড়ে ১০ দশমিক ৫৯ শতাংশ। পশ্চিমবঙ্গে ভোট পড়েছে ১৬ দশমিক ৬৮%, বিহার ৯ দশমিক ০৩%, হরিয়ানা ৮ দশমিক ৪৩%, মধ্যপ্রদেশ ১১ দশমিক ৮৮%, উত্তরপ্রদেশ ৯ দশমিক ৩৭%, ঝাড়খ- ১৫ দশমিক ৩৬%, দিল্লি ৭ দশমিক ৭৮%।

নিজের কেন্দ্র উত্তপ্রদেশের সুলতানপুরে একটি বুথের সামনে বিরোধী মহাজোটের প্রার্থী সনু সিংহের সঙ্গে বিবাদে জড়ান মেনকা গান্ধী। সকাল থেকেই বুথে বুথে ঘুরছিলেন দুই প্রার্থী। তার মধ্যেই একটি বুথের সামনে দেখা হয়ে যায় দুজনের। মেনকা গান্ধীর অভিযোগ, ভোটারদের ভয় দেখাচ্ছিলেন সনু সিংহ এবং তার অনুগামীরা। দুজন মুখোমুখি হওয়ার পর মেনকা সনুকে ডেকে বলেন, এখানে এই সব দাদাগিরি চলবে না। এই নিয়েই ওই বুথে কিছুটা উত্তেজনা ছড়ায়। পরে পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এর জেরে ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়নি বলে জানিয়েছে কমিশন সূত্র।

ভোট শুরু হতেই বুথে বুথে ভোট দিতে পৌঁছে গিয়েছেন হেভিওয়েট নেতা-প্রার্থীরা। রাষ্ট্রপতি ভবনের বুথে ভোট দিলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। নিজের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করার পর কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী বললেন, রাফাল, নোটবন্দি, কৃষকদের সমস্যা, জিএসটিসহ একাধিক ইস্যুতে এবার ভোট হচ্ছে। ভোটপ্রচারে তার বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়ালেও তিনি প্রয়োগ করেছেন ভালোবাসার অস্ত্র। ভালোবাসাই শেষ পর্যন্ত জিতবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। দিল্লির ওল্ড রাজেন্দ্র নগরের বুথে সস্ত্রীক ভোট দিলেন পূর্ব-দিল্লি কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী তথা সাবেক ভারতীয় ক্রিকেট অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর। উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজে নিজের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করলেন সে রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী তথা একসময় এ রাজ্যে বিজেপির পর্যবেক্ষক সিদ্ধার্থনাথ সিংহ। সাবেক ক্রিকেট অধিনায়কের পাশাপাশি ভোট দিলেন বর্তমান অধিনায়কও। দিল্লির গুরুগ্রামে পাইনক্রেস্ট স্কুলে। দিল্লির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী তথা বর্তমানে দিল্লি প্রদেশ কংগ্রেসের সভানেত্রী এবং উত্তর দিল্লি কেন্দ্রের প্রার্থী শীলা দিক্ষীত ভোট দিলেন নিজামউদ্দিনের (পূর্ব) একটি বুথে। হরিয়ানার কর্নার বুথে ভোট দিয়েছেন সে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টার। পূর্ব দিল্লি কেন্দ্রের পা-বনগরে ভোট দিলেন দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া।

 

"