লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

প্রিয়াঙ্কার রোডশো

মাঝপথে আটকে গেলেন মেনকা

প্রকাশ : ১২ মে ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

তার জন্য আটকে থাকা বিমান ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি। সেই নেত্রীকেই দেখতে হলো তার জন্য আটকে পড়েছেন কাকিমা। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মুখোমুখি হলেন কাকিমা এবং ভাশুরঝি। ভোটপ্রচারে বেরিয়ে দুজনে মুখোমুখি হলেন বটে, কিন্তু কেউই কারো দিকে তাকালেন না। হলো না কুশল বিনিময়। কারণ, তারা যে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ।

গত শুক্রবার সন্ধ্যায় উত্তর প্রদেশের সুলতানপুরে দলীয় প্রার্থী সঞ্জয় সিংহের হয়ে রোড শো করছিলেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। উল্টো দিক থেকে তখন আসছিল বিজেপি প্রার্থী মেনকা গান্ধীর কনভয়। কিন্তু ভাশুরঝির রোড শোয়ের জন্য তৈরি হওয়া যানজটে আটকে পড়ল কেন্দ্রীয়মন্ত্রী কাকিমার কনভয়। সেই কাকিমা, যিনি মানুষ করেছেন তাকে। সেই কাকিমা, যার বিরুদ্ধে কোনো দিন নির্বাচনী প্রচার করেননি প্রিয়াঙ্কা।

সেই মেনকা তখন তাকিয়ে অন্য দিকে। আর এসপিজির সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে থেকে প্রিয়াঙ্কা হাত নাড়ছিলেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ভিড়ের দিকেই হাত নাড়ছিলেন সোনিয়া গান্ধীর মেয়ে। কংগ্রেসের তরফে অবশ্য দাবি করা হয়েছে, কাকিমার দিকেই হাত নাড়ছিলেন প্রিয়াঙ্কা। পুলিশ কয়েক মিনিটের মধ্যে যানজট সরিয়ে দেয়। ফের চলতে থাকে মেনকার কনভয়।

লখনউ বিমানবন্দরে প্রিয়াঙ্কার জন্যই আটকে পড়েছিল একটি বিমান। সেই যাত্রীবাহী বিমানটিকে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। ঘটনাটি কী?

সম্প্রতি আমেঠীতে গিয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা। তার দিল্লি ফেরার জন্য যে বেসরকারি চার্টার্ড বিমানটি ছিল, সেটি বিকল হয়ে যায়। ফলে কংগ্রেসকর্মীরা লখনউ থেকে প্রিয়াঙ্কার জন্য একটি বেসরকারি বিমানের টিকিট কেটে রাখেন। সেই বিমান ছাড়ার কথা ছিল রাত ১০টা ৫০ মিনিটে। কিন্তু কর্মীরা বুঝতে পারেন, সময়ে পৌঁছাতে পারবেন না প্রিয়াঙ্কা। দলীয় কর্মীরা তাই বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছিলেন, বিমানটি যেন একটু দেরি করে ছাড়া হয়। তার জন্য আটকে

রয়েছে বিমান, সেই খবর শুনে রীতিমতো ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা এবং কর্মীদের নির্দেশ দেন বিমানটিকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য। ভোটের প্রচারে দাঁড়িয়ে সেই প্রিয়াঙ্কাকেই দেখতে হলো তার রোড শোয়ের জন্য আটকে পড়েছেন কাকিমা।

এই ব্যাপারে পরে প্রশ্ন করা হলে কোনো মন্তব্য করতে চাননি মেনকা। আর প্রিয়াঙ্কা বলেন, আমি কংগ্রেস প্রার্থীর হয়ে প্রচার করছিলাম। কারো বিরুদ্ধে নয়। মেনকা এবং তার ছেলে বরুণ গান্ধীর বিরুদ্ধে কখনোই প্রচার করেননি সোনিয়া, রাহুল গান্ধীরা। ২০১৪ সালে সুলতানপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী হয়েছিলেন বরুণ। সেইবার সুলতানপুরে কংগ্রেস কর্মীদের সঙ্গে একটি বৈঠক করেছিলেন প্রিয়াঙ্কা। সেখানে তিনি বলেছিলেন, গান্ধী পরিবারের আদর্শ পথ থেকে বিচ্যুত হয়েছেন বরুণ। তাই তাকে ঠিক পথ দেখিয়ে দেওয়া উচিত। গান্ধী পরিবারের এক সদস্য আর এক সদস্য সম্পর্কে এমন মন্তব্য করায় ‘ভাইরাল’ হয়েছিল প্রিয়াঙ্কার সেই বৈঠকের ভিডিও।

গত শুক্রবার সিদ্ধার্থনগরে একটি জনসভা করেন প্রিয়াঙ্কা। প্রতিটি সভায় এখন নিয়ম করে নেহরু এবং গান্ধী পরিবারকে আক্রমণ করছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বিভিন্ন বিষয়ে কাঠগড়ায় তুলছেন প্রিয়াঙ্কার বাবা রাজীব গান্ধীকেও। গত শুক্রবার সেই প্রসঙ্গে প্রিয়াঙ্কা বলেন, প্রধানমন্ত্রী পাকিস্তান এবং অন্যসব অদ্ভুত বিষয় নিয়ে বলছেন, কিন্তু মানুষের সমস্যা নিয়ে একটি কথাও বলছেন না প্রিয়াঙ্কার অভিযোগ, বিজেপি সরকার ‘অহংকারী’। তারা ঘৃণা ছড়াচ্ছে।

"