ষষ্ঠ দফায় পশ্চিমবঙ্গে ৭৭০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী

প্রকাশ : ১১ মে ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভোটে নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে পদক্ষেপ নিয়েছে ভারতের কমিশন। পশ্চিমবঙ্গে ষষ্ঠ দফার ভোটে বাড়ছে কেন্দ্রীয় বাহিনীর সংখ্যা। বাড়ছে আরো ৩০ কোম্পানি। জানিয়েছেন বাংলায় লোকসভা নির্বাচনে কমিশন নিযুক্ত বিশেষ পর্যবেক্ষক আজয় নায়েক।

আগামীকাল রোববার ভারতে লোকসভার ষষ্ঠ দফার নির্বাচন। ভোট রয়েছে পশ্চিমবঙ্গে আট কেন্দ্রে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য একদা মাওবাদী অধ্যুষিত ঝাড়গ্রাম লোকসভা কেন্দ্র। আট কেন্দ্রেই শান্তিতে ভোট করাতে তৎপর নির্বাচন কমিশন। এই আট কেন্দ্রের প্রত্যেক বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মজুদ থাকবে বলে জানিয়েছে কমিশন। ভোট কেন্দ্র পিছু একটি বুথ বেশি সংখ্যায় থাকায় কেন্দ্রীয় বাহিনী বেশি প্রয়োজন বলে জানিয়েছে কমিশন।

এর আগে কমিশন জানিয়েছিল রাজ্যে ষষ্ঠ দফার নির্বাচনে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে ৭৪০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। তবে পরবর্তী ক্ষেত্রে বাহিনী সংখ্যা বেড়ে হয় ৭৭০ কোম্পানি। ঝাড়গ্রামে মোতায়েন থাকবে বাড়তি বাহিনী। বাংলায় ভোটের পর্যবেক্ষক আজয় নায়েকের কথায়, ৭৭০ কোম্পানির মধ্যে ২৭ কোম্পানি থাকবে স্ট্রং রুমের দায়িত্বে। বাকি ৭৪৩ কোম্পানিকে ভোটের নিরাপত্তার দায়িত্বে রাখা হবে।

আগামীকাল রোববার ভোট রয়েছে মেদিনীপুর, ঘাটাল, ঝাড়গ্রাম, কাঁথি, তমলুক, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুরে এই আট কেন্দ্র থেকেই প্রচার ঘিরে নানা সময় বিভিন্ন অভিযোগ জমা পড়েছে কমিশনের দফতরে। প্রচার ঘিরে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের সঙ্গে বিজেপির দ্বৈরথ তুঙ্গে। এই অবস্থায় ভোটের দিন পরিস্থিতি জটিল হতে পারে।

অন্য দিকে, রাজ্যে বিগত পাঁচ দফার ভোটে হিংসা এড়ানো যায়নি। মুর্শিদাবাদে ভোট সংঘর্ষের বলি হতে হয় দুজনকে। এছাড়াও প্রথম পর্বের কোচবিহার থেকে পঞ্চম পর্বের বারাকপুর, হুগলির ধনেখালিকে বুখ জ্যাম, ছাপ্পা, বিরোধী ভোটারদের ভয় দেখানোর অভিযোগ ছিল। তৃণমূল থেকে গেরুয়া বাহিনী, প্রশ্ন তুলেছিল কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভূমিকা নিয়ে। এই পরিস্থিতিতে ভোট অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে ষষ্ঠ দফায় বাড়তি বাহিনী নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয় নির্বাচন কমিশন। ঠিক হয়েছে, বুথমুখী ভোটারদের সুরক্ষার বিষয়টিও দেখবে কেন্দ্রীয় বাহিনী।

"