বিজেপির ইশতেহারে উত্তাল কাশ্মীর-পশ্চিমবঙ্গ

প্রকাশ : ১০ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বিজেপির ইশতেহারকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে জম্মু-কাশ্মীর ও পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে। গত সোমবার উপত্যকার সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ হুশিয়ার করে বলেন, ৩৭০ ধারা বাতিল হলে স্বাধীনতার দাবিতে আন্দোলনে নামবে কাশ্মীরিরা। এ ধারাকে স্থায়ী ও অপরিবর্তনীয় বলে মন্তব্য করেছেন জম্মু-কাশ্মীর কংগ্রেস কমিটির প্রধান জি এ মীর।

এছাড়া নাগরিক তালিকা বিজেপির ভাঁওতাবাজি বলে কটাক্ষ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার নির্বাচনী ইশতেহারে অন্য প্রতিশ্রুতির পাশাপাশি সংবিধান থেকে ৩৭০ ধারা বাতিলের ঘোষণা দেয় ভারতীয় জনতা পার্টি। ওই ধারায় রাজ্যের অনুমোদন ছাড়া প্রতিরক্ষা, বিদেশনীতি আর যোগাযোগ ব্যবস্থা ব্যতীত অন্য কোনো বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে পারে না কেন্দ্রীয় সরকার। বিজেপির দাবি জম্মু-কাশ্মীরকে ভারতের অখ- হিসেবে রাখতে ৩৭০ ধারা বাতিল করতে চায় তারা।

বিজেপির এ ঘোষণার পরপরই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে উপত্যকার রাজনীতিতে। সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ বলেন, বিজেপি ৩৭০ ধারা বাতিল করলে বসে থাকবে না কাশ্মীরিরা।

তিনি বলেন, দিল্লি কী মনে করেছে? তারা ৩৭০ ধারা তুলে দেবে আর আমরা চুপ করে বসে থাকব? তারা ভুল ভাবছে। আমরা অবশ্যই এর বিরোধিতা করব। তাদের এটা করতে দিন, আমরা স্বাধীনতার জন্য সরব হব।

স্পর্শকাতর বিষয়ে বিজেপি ভোটের রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ করেছেন জম্মু-কাশ্মীর প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির প্রধান জি এ মির। বিজেপির ইশতেহার প্রত্যাখ্যান করে বিজেপিকে বয়কটের জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। এ জি মির বলেন, ৩৭০ এবং ৩৫-এর এ ধারা নিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করছে বিজেপি। জন্ম থেকে কাশ্মীরিদের অধিকারের বিরোধিতা করছে তারা। সংবিধানের ৩৭০ ধারা স্থায়ী। এটার কোনো পরিবর্তন হবে না। ইশতেহারে আসামের মতো সারা ভারতে নাগরিক তালিকা প্রণয়নেরও প্রতিশ্রুতি দেয় বিজেপি। তাদের পরিকল্পনা পুরোই ভাঁওতাবাজি বলে আখ্যা দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, এনআরসি করতে এলে বিজেপিকে দেখিয়ে দেওয়া হবে। ১১ এপ্রিল থেকে শুরু হচ্ছে ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচন। সাত ধাপে ভোটগ্রহণ চলবে ১৯ মে পর্যন্ত। ২৩ মে ফলাফল ঘোষণার কথা রয়েছে।

 

"