ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডকে ‘সন্ত্রাসী’ তকমা দিল যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশ : ১০ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইরানের এলিট রেভল্যুশনারি গার্ড বাহিনীকে (আইআরজিসি) বিদেশি সন্ত্রাসী সংগঠনের তকমা দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্র অন্য একটি দেশের সেনাবাহিনীকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসাবে চিহ্নিত করল। ইরান সঙ্গে সঙ্গেই এর জবাবে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল কমান্ডকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা করেছে। ইরানের রাষ্ট্রীয় খবরে এ কথা জানানো হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

ইরানের সঙ্গে ছয় বিশ্ব শক্তির করা ২০১৫ সালের পরমাণু চুক্তি যুক্তরাষ্ট্র পরিহার করার পর থেকেই ওয়াশিংটন-তেহরান উত্তেজনা বেড়েছে। গত সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, ‘পররাষ্ট্র দফতরের উদ্যোগে নজিরবিহীন এই পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে এ বাস্তবতাকেই স্বীকার করে নেওয়া হয়েছে যে, ইরান কেবল সন্ত্রাসে মদদদাতা রাষ্ট্রই নয় বরং আইআরজিসি সক্রিয়ভাবে রাষ্ট্র পরিচালনা ব্যবস্থার হাতিয়ার হিসেবে সন্ত্রাসে অর্থায়ন করা এবং সন্ত্রাসী কর্মকা-কে উৎসাহিত করে থাকে।’

ইরানের এলিট রেভল্যুশনারি গার্ড কোর (আইআরজিসি)’কে সন্ত্রাসী সংগঠন ঘোষণার ফলে যুক্তরাষ্ট্র তেহরানের ওপর আরো নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারবে। বিশেষ করে ইরানের ব্যবসা খাতে এ নিষেধাজ্ঞার প্রভাব পড়বে। আইআরজিসি এবং এ বাহিনী সংশ্লিষ্ট বহু প্রতিষ্ঠানই সন্ত্রাসে সমর্থন দেওয়া এবং মানবাধিকারের অপব্যবহারের অভিযোগে এরই মধ্যে ?যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার শিকার হয়েছে।

এখন নতুন পদক্ষেপের ফলে ইরানকে আরো চাপে ফেলার ‘সুযোগ এবং পরিধি অনেকটাই বাড়ল’ বলে জানিয়েছেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, ‘আইআরজিসির সঙ্গে কেউ ব্যবসা করা মানেই সে সন্ত্রাসে অর্থায়ন করছে বলে ধরে নেওয়া হবে।’ এক সপ্তাহ সময়ের মধ্যেই এ পদক্ষেপ কার্যকর হবে বলে জানিয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এবং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন দুজনই মূলত এ সিদ্ধান্ত নেন। অন্য মার্কিন কর্মকর্তারা এতে ততটা সমর্থন দেননি। পম্পেও গত সোমবার সাংবাদিকদের বলেছেন, ইরান যাতে একটি স্বাভাবিক জাতির মতো আচরণ করে সেজন্য যুক্তরাষ্ট্র দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা এবং চাপ অব্যাহত রাখবে। যুক্তরাষ্ট্রের অন্য মিত্রদেশগুলোকেও ইরানের বিরুদ্ধে একই ব্যবস্থান নেওয়ারও আহ্বান জানিয়েছেন পম্পেও।

 

"