ব্রেক্সিট : হেরে গেলেন মে

প্রকাশ : ১৪ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

দ্বিতীয় দফাতেও প্রত্যাখ্যাত হয়েছে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের ব্রেক্সিট পরিকল্পনা। মঙ্গলবার (১২ মার্চ) ব্রিটিশ পার্লামেন্টে দ্বিতীয় দফার ভোটাভুটিতে ৩৯১-২৮২ ভোটে আইনপ্রণেতারা তার পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করেন। এনিয়ে আবারও হোঁচট খেল ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বের হয়ে যাওয়া নিয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর পরিকল্পনা। সর্বশেষ গত ১৬ জানুয়ারি পার্লামেন্টের ভোটাভুটিতে বাতিল হয়ে যায় থেরেসা মে’র ব্রেক্সিট পরিকল্পনা। দ্বিতীয় দফায় পরিকল্পনা বাতিলে হওয়ার পর থেরেসা মে বলেছেন, আগামী ২৯ মার্চ কোনো চুক্তি ছাড়াই যুক্তরাজ্য ইইউ থেকে বেরিয়ে যাবে কি না, তা নিয়ে ভোট দেবেন আইনপ্রণেতারা আর তা ব্যর্থ হলে ব্রেক্সিট বিলম্বিত হবে কি না, তা নিয়ে ভোট দেবেন। আগামী বুধ ও বৃহস্পতিবার এসব প্রশ্নে ভোটাভুটি হতে পারে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

আনুষ্ঠানিকভাবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বের হয়ে আসতে (ব্রেক্সিট) আর মাত্র দুই সপ্তাহ বাকি। এক গণভোটের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২০১৯ সালের ২৯ মার্চের মধ্যে যুক্তরাজ্যের ইউরোপীয় ইউনিয়ন ছেড়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বের হয়ে যাওয়ার কথা। দিনটিকে সামনে রেখে পার্লামেন্টে নিজের প্রস্তাব করা সংশোধিত ব্রেক্সিট পরিকল্পনা পাস করাতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের সম্পর্ক কেমন হবে তা নিয়ে গত নভেম্বরে জোটটির সঙ্গে একটি চুক্তিতে পৌঁছেছিলেন থেরেসা। সে ব্রেক্সিট চুক্তি ব্রিটিশ পার্লামেন্টে অনুমোদন করানোর বাধ্যবাধকতা থাকলেও তা প্রত্যাখ্যাত হয়। পরে ব্রিটিশ এমপিরা থেরেসা মে’কে ইইউ’র সঙ্গে নতুন করে আলোচনার সুযোগ দেন। সোমবার (১১ মার্চ) ইউরোপীয় ইউনিয়ন নেতাদের সঙ্গে আলোচনার পর থেরেসা দাবি করেন, পরিকল্পনায় ‘আইনগতভাবে বাধ্যতামূলক’ পরিবর্তন আনতে সমর্থ হয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার হাউস অব কমন্সে থেরেসার সে সংশোধিত পরিকল্পনাটিও ভোটাভুটিতে বাতিল করে দেন আইনপ্রণেতারা।

গত ১৬ জানুয়ারি প্রথম দফার ভোটাভুটিতে ৪৩২ জন এমপি প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দিয়েছিলেন। আর থেরেসা মের প্রস্তাবকে সমর্থন জানিয়েছিলেন মাত্র ২০২ জন এমপি। তবে এবার থেরেসা দাবি করেছেন, ইইউ নেতাদের সঙ্গে আলোচনার পর পূর্ববর্তী পরিকল্পনায় উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আনতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। এদিন আগের চেয়ে বেশি ভোট পেলেও তার পরিকল্পনা বাতিল হয়ে যায়।

পরিকল্পনা বাতিল হওয়ার পর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, চুক্তি ছাড়াই আগামী ২৯ মার্চ যুক্তরাজ্য ইইউ থেকে বেরিয়ে যাবে কি না, তা নিয়ে ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হবে। ওই ভোটাভুটিতে সিদ্ধান্ত নিতে ব্যর্থ হলে ব্রেক্সিট বিলম্বিত হবে কিনা তা নিয়ে ভোটাভুটি হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। এসব ভোটাভুটিতে নিজের পার্টি রক্ষণশীল দলের আইন প্রণেতারা চুক্তি ছাড়া ব্রেক্সিট প্রশ্নে দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়েও ভোট দিতে পারবেন বলেও জানান তিনি।

 

"