উত্তর কোরিয়ার নির্বাচনে শতভাগ ভোট পড়ে

প্রকাশ : ১২ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

উত্তর কোরিয়া সারা বিশ্ব থেকে কার্যত বিচ্ছিন্ন একটি দেশ। কিম পরিবার বংশপরম্পরায় দেশটি শাসন করছে। দেশটির ভোটাররা রোববার ক্ষমতাহীন রাবার স্ট্যাম্প সংসদ নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন। প্রেসিডেন্ট কিম জং উন ক্ষমতা গ্রহণের পর সে দেশে দ্বিতীয়বার এই নির্বাচন হলো। উত্তর কোরিয়ার সংসদে আনুষ্ঠানিক নাম ‘সুপ্রিম পিপলস অ্যাসেম্বলি’ (এসপিএ) এবং এতে ভোটদান বাধ্যতামূলক। সরকারি তালিকার বাইরে এতে অন্য কোনো প্রার্থী বেছে নেয়ার সুযোগ থাকে না। বিরোধী দল বলেও কিছু নেই।

এই ধরনের নির্বাচনে বিশেষত্ব হলো এতে ভোটার উপস্থিতির হার থাকে ১০০%। দেশটির সরকার যে জোট তৈরি করবে সেই জোটকেই সর্বসম্মতভাবে ভোট দিতে হবে। শাসক পরিবার এবং ক্ষমতাসীন নেতার প্রতি সম্পূর্ণ আনুগত্য দেখানো প্রত্যেক নাগরিকের জন্য বাধ্যতামূলক। উত্তর কোরিয়াতে আরেকটি কড়া নিয়ম প্রচলিত রয়েছে। সেটি হলো সরকারের সমর্থনে উল্লাস প্রকাশ করা উত্তর কোরীয়দের জীবনে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। নির্বাচনের দিনে ১৭ বছর বয়সের ওপর সব নাগরিককে ভোট দিতে হয়।

উত্তর কোরীয়বিষয়ক একজন বিশেষজ্ঞ ফিয়োদর টার্টিস্কি। দেশটির নির্বাচন পদ্ধতি সম্পর্কে তিনি বলেন, আনুগত্যের প্রমাণ হিসেবে আপনাকে খুব ভোরে নির্বাচন কেন্দ্রে হাজির হতে হবে। এর মানে হলো সবাই একসঙ্গে উপস্থিত হওয়ার পর ভোটকেন্দ্র লম্বা লাইন হবে। এরপর ভোটার যখন ভোটকেন্দ্রে ঢুকবেন তখন তার হাতে একটি ব্যালট পেপার দেয়া হবে। ব্যালট পেপারে একটাই নাম থাকবে। সেখানে কোনো কিছু লিখতে হবে না। কোনো বাক্সে টিক চিহ্ন থাকবে না। ভোটার শুধু ব্যালট পেপারটি নিয়ে একটি বাক্সে ভরে দেবে।

 

"