ভারী তুষারপাতে বিপর্যস্ত ইউরোপ

প্রকাশ | ১৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভয়াবহ তুষারপাত এবং তীব্র তুষার ঝড়ে বিপর্যস্ত সুইডেন, জার্মানি, নরওয়েসহ ইউরোপের কয়েকটি দেশ। প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে এ পর্যন্ত কয়েক জনের মৃত্যুর খবরও পাওয়া গেছে। জার্মানি এবং সুইডেনে গত শুক্রবার ভারী তুষারপাতের কারণে জীবনযাত্রা অচল হয়ে পড়েছে। বন্ধ হয়ে গেছে রাস্তা, ট্রেন চলাচল এবং স্কুলও। জার্মানির দক্ষিণাঞ্চলীয় বাভারিয়া রাজ্যে রাস্তায় আটকে পড়া গাড়িচালকদের উদ্ধার করেছে রেডক্রস। মিউনিখের কাছে গাছ পড়ে নিহত হয়েছে ৯ বছরের এক বালক। সুইজারল্যান্ডের একটি হোটেলে তুষার ধসে তিনজন আহত হয়েছে। ওদিকে, ঝড়ে সুইডেন এবং নরওয়ের রাস্তা গাড়ি চলাচলের অনুপযুক্ত হয়ে পড়েছে। বরফে ডুবে গেছে কার এমনকি বাসও। তুষারপাতে বিপর্যস্ত হয়েছে অস্ট্রিয়াও। সেখানে উদ্ধারকর্মীদের বুক পর্যন্ত জমে থাকা বরফ সরিয়ে উদ্ধার কাজ চালাতে হচ্ছে।

প্রতিকূল এ আবহওয়ায় গত সপ্তাহে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে এবং গতকাল শনিবার থেকে দুজন নিখোঁজ রয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

অস্ট্রিয়ার আবহাওয়া সংস্থার এক কর্মকর্তা বলেছেন, এমন ভয়াবহ তুষারপাত কেবল প্রতি ৩০ কিংবা ১০০ বছর পরপরই দেখা যায়।

অস্ট্রিয়ায় গাছের মাথার ওপর থেকে বরফ সরাতে হেলিকপ্টার পাঠিয়েছে সেনাবাহিনী। তুষার জমে রাস্তায় গাছ ভেঙে পড়ে যাতে কোনো দুর্ঘটনা না ঘটে সেজন্যই এ ব্যবস্থা।

সুইডেনে তুষারে উত্তরাঞ্চলের কয়েকটি এলাকা তছনছ হয়েছে। একটি এলাকায় প্রতি ঘণ্টায় ১১১ মাইল বেগে ঝড় বয়ে গেছে।

নরওয়ের উত্তরাঞ্চলে তুষারপাতের কারণে গত বৃহস্পতিবার পার্বত্য একটি রাস্তায় আটকা পড়েন গাড়িচালকরা। গত শুক্রবার সকালে উদ্ধার পাওয়ার আগ পর্যন্ত তীব্র ঠান্ডায় তাদের কাটাতে হয়েছে গাড়ির ভেতরেই।

গত শুক্রবার তুষারপাতে সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতিতে পড়েছে জার্মানির বাভারিয়া। রাজ্যের দক্ষিণ ও পূর্বাঞ্চলে গাছপালা ভেঙে পড়ে রাস্তা বন্ধ হয়ে অচল হয়েছে জনজীবন। প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে মিউনিখে বাতিল হয়ে গেছে ৯০টি ফ্লাইট। ফ্রাঙ্কফুর্ট বিমানবন্দরেও ফ্লাইট বিঘিœত হয়েছে।

"