মহাভারতের যুগেও ছিল টেস্টটিউব বেবি!

প্রকাশ : ০৭ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ama ami

সম্প্রতি ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব দাবি করেন, মহাভারতের যুগে ইন্টারনেট ছিল। এবার বিপ্লব দেবের সেই মতবাদকে আরো এক ধাপ চড়িয়ে দিলেন ভারতের অন্ধপ্রদেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য জি নাগেশ্বর রাও। তিনি বলেন, টেস্টটিউব বেবি প্রযুক্তির মাধ্যমেই মহাভারতের যুগে এক মায়ের গর্ভ থেকে ১০০টি সন্তানের জন্ম নিয়েছিল। গত শুক্রবার ভারতীয় বিজ্ঞান কংগ্রেসে এক বক্তব্যে তিনি এমনটাই দাবি করলেন। জি নাগেশ্বর রাও বলেন, আমরা দেখেছি মহাভারতে ১০০ জন কৌরবের জন্ম হয়েছিল এক মায়ের গর্ভ থেকে। এটা সম্ভব হয়েছিল স্টেম সেল গবেষণা এবং টেস্টটিউব প্রযুক্তির উন্নতির জন্য, যা হয়েছিল হাজার বছর আগে। এটাই ছিল আমাদের বিজ্ঞান। মহাভারতে বলা হয়েছে, ১০০টি ডিম্বাণুকে নিষিক্ত করে সেগুলিকে ১০০টি আলাদা আলাদা মাটির পাত্রে রাখা হয়েছিল। তাহলে এগুলোকে তো টেস্টটিউব বেবিই বলা উচিত। নাগেশ্বর রাওয়ের দাবি, আমাদের দেশের স্টেম সেল গবেষণার ইতিহাস হাজার বছরের পুরনো। শুধু টেস্টটিউব বেবি নয়, অস্ত্রশস্ত্র গবেষণার ক্ষেত্রেও ভারত অনেক এগিয়ে ছিল পৌরাণিক যুগে। রাও বলেন, আমরা দেখেছি ভগবান রাম কিভাবে এমন অস্ত্র ব্যবহার করতেন যেগুলো লক্ষ্যবস্তুকে খুঁজে নিয়ে মারত, আবার ফিরেও আসত। এটাই প্রমাণ করে সে যুগেও গাইডেড মিসাইল প্রযুক্তি ছিল।

তিনি বলেন, রাবনের অন্তত ২৪ রকমের আলাদা আলাদা উড়োজাহাজ ছিল। সেসময় লঙ্কায় বেশকিছু বিমানবন্দরও গড়েছিলেন রাবন।

এদিকে উপাচার্য নাগেশ্বর রাওয়ের এ ধরনের মন্তব্যের কারণে তাকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক ও টুইটারে হাসির রোল উঠেছে।

"