নভেম্বরে ২৪ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে ইসরায়েল

প্রকাশ : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

নভেম্বরে ইসরায়েলি দখলদারি বাহিনীর অভিযানে প্রাণ হারিয়েছেন ২৪ জন ফিলিস্তিনি। এদের মধ্যে তিনজন শিশুও রয়েছে। পিএলও’র সেন্টার ফর স্টাডি অ্যান্ড ডকুমেন্টেশনের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে আসে।

নিহতদের মধ্যে ২১ জনই অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার বাসিন্দা। বাকিরা প্রাণ হারান অবরুদ্ধ পশ্চিমতীরে। পিএলও জানায়, ইসরায়েলি বাহিনী ৩৫ লাশ আটকে রেখেছে যা আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন অনুসার নিষিদ্ধ। এই এক মাসে গ্রেফতার হয়েছে ৪৫০ জন ফিলিস্তিনি। এর মধ্যে ১২ জন গাজা থেকে। গুলি ও টিয়ার গ্যাসে আহত হয়েছেন ৮৫০ জন। তাদের মধ্যে ৪৯০ জন গাজা উপত্যকার এবং প্রায় ৩৬০ জন পশ্চিমতীর ও জেরুজালেম থেকে। এ ছাড়া আক্রমণের শিকার হয়েছেন সাংবাদিকও। এ সময় নতুন ৬৪০টি বসতি নির্মাণেরও অনুমতি দিয়েছে ইসরায়েল কর্তৃপক্ষ।

১৯৬৭ সালে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধে ইসরায়েল ফিলিস্তিনসহ অন্যান্য আরব রাষ্ট্রের একটা বড় অংশ দখল করে নেয়। পরে আন্তর্জাতিক চুক্তি অনুযায়ী ইসরায়েলের সীমানা নির্ধারণ করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের সিদ্ধান্ত হয়। তবে এই দ্বি-রাষ্ট্র সমাধান আজ পর্যন্ত আলোর মুখ দেখেনি। ফিলিস্তিনিরা চায় পূর্ব জেরুজালেমকে রাজধানী করা হোক। আর ইসরায়েলের দাবি, জেরুজালেম অবিভাজ্য। ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংকট প্রশ্নে দীর্ঘদিন ধরেই স্বতন্ত্র দুটি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার নীতির পক্ষে সমর্থন জানিয়েছিল আসছিল যুক্তরাষ্ট্র।

তবে সেই নীতি থেকে সরে এসে ২০১৭ সালের ৬ ডিসেম্বর জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে মার্কিন স্বীকৃতির সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রের ইসরায়েলি দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে সরিয়ে নেওয়া হয়।

"