ভারতে গো-হত্যার গুজবে পুলিশসহ নিহত ২

প্রকাশ : ০৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের উত্তর প্রদেশে একটি পুলিশ স্টেশনের নিকটবর্তী জঙ্গলের পাশে ২৫টি গরুর দেহাবশেষ পাওয়ার গুজবে সৃষ্ট সহিংসতায় এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। গত সোমবার উত্তরপ্রদেশের পশ্চিমাঞ্চলীয় বুলন্দশহর জেলায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে খবর এনডিটিভি, আনন্দবাজার পত্রিকার। পুলিশের বরাতে আনন্দবাজার জানিয়েছে, বুলন্দশহরের স্যানা মহকুমা এলাকার মাহু গ্রামের প্রান্তীয় জঙ্গলের পাশে একটি খোলা জায়গায় ২৫টি গরুর দেহাবশেষ পড়ে থাকতে দেখা গেছে বলে গুজব রটে। স্থানীয় সময় সকাল ১১টার দিকে গো-হত্যার প্রতিবাদে ডানপন্থি আন্দোলনকারী ও স্থানীয়রা বিক্ষোভ শুরু করে। তারা ট্র্যাক্টর ট্রলিতে গরুর দেহাবশেষগুলো তুলে নিয়ে সড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদ জানাতে শুরু করে। জেলা হাকিম অনুজ কুমার ঝা জানিয়েছেন, পুলিশ অবরোধ সরাতে গেলে জনতা পুলিশের ওপর চড়াও হয়। এ সময় তাদের নিক্ষিপ্ত পাথরে পরিদর্শক সুবোধ কুমার সিংসহ কয়েকজন পুলিশ আহত হন। পরিদর্শক সুবোধ কুমারের গাড়ির চালক রাম আসর জানিয়েছেন, আহত পুলিশ কর্মকর্তাকে নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার সময় উত্তেজিত জনতা দ্বিতীয়বারের মতো তাদের আক্রমণ করে। জনতা তাদের গাড়ি ঘিরে ফেললে প্রাণ বাঁচাতে তিনি গাড়ি রেখে পালিয়ে যান।

মোবাইলে ধারণ করা একটি ভিডিওর বর্ণনা দিয়ে এনডিটিভি জানিয়েছে, পরিদর্শক সুধির কুমার গাড়ির মধ্যে নিস্তেজ হয়ে পড়ে আছেন, গাড়ির উয়িন্ডস্ক্রিন চুরমার করা এবং দরজাগুলো খোলা। গুলির শব্দ হচ্ছে, উত্তেজিত জনতা চারপাশে দৌড়াদৌড়ি করছে আর বলছে ‘গুলি কর’। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে বাম ভুরুর নিচে লাগা গুলির আঘাতে সুবোধ কুমারের মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত হয়েছে। জনতা তার সরকারি পিস্তল ও মোবাইল ফোনটিও নিয়ে গেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। প্রায় এক ঘণ্টা ধরে চলা এ সহিংসতায় স্থানীয় এক ব্যক্তিও নিহত হয়েছেন। উত্তেজিত জনতার পাথর নিক্ষেপে পাঁচ পুলিশ আহত হয়েছেন। জনতা একটি পুলিশ স্টেশন ও বেশ কয়েকটি গাড়িও পুড়িয়ে দিয়েছে। সহিংসতার এ ঘটনা তদন্ত করতে বিশেষ তদন্ত দল গঠন করা হয়েছে। ভিডিওতে দেখা যাওয়া দাঙ্গাকারীদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ দুই দিনের মধ্যে প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন চেয়ে পাঠিয়েছেন। নিহত পুলিশ পরিদর্শক সুবোধ কুমারের স্ত্রীর জন্য ৪০ লাখ রুপি, তার পিতামাতার জন্য ১০ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণের পাশাপাশি ওই পরিবারের একজন সদস্যকে একটি সরকারি চাকরি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

 

"