প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে ২ মুসলিম নারী

প্রকাশ : ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রথমবারের মতো দুজন মুসলিম নারী প্রতিনিধি সদস্য পেল যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেস। মঙ্গলবারের ভোটে মিনেসোটা ও মিশিগানের ভোটাররা তাদের প্রতিনিধি হিসেবে ইলহান ওমর ও রাশিদা তালিবকে নির্বাচিত করেছে। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

গৃহযুদ্ধের কারণে সোমালিয়া থেকে পালিয়ে আসা ওমর একজন সাবেক শরণার্থী ও তালিব ডেট্রয়িটে জন্মগ্রহণকারী ফিলিস্তিন-আমেরিকান পিতা-মাতার সন্তান। তারা দুজনেই ডেমোক্র্যাট প্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। মিনেসোটা থেকে নির্বাচিত ইলহান ওমর সোমালিয়া থেকে আসার পর যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব পান। তিনি মিনিসোটা অঙ্গরাজ্যের আইন পরিষদেরও সদস্য ছিলেন। শিশু বয়সে তিনি চার বছর কেনিয়ার একটি শরণার্থী শিবিরে ছিলেন।

দুই বছর আগে যে রাতে ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন, সেই রাতে প্রথম সোমালি-আমেরিকান হিসেবে ওমর দেশটির একটি অঙ্গরাজ্যের আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। ওই প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্প সব মুসলিমের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রচারণা চালিয়েছিলেন। যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের প্রথম হিজাব পরা সদস্য হতে যাচ্ছেন ৩৬ বছর বয়সী ওমর। অন্যদিকে ৪২ বছর বয়সী তালিবও ইতিহাসের ধারা পাল্টে দেওয়া আরেকজন নারী। ২০০৮ সালে প্রথম মুসলিম নারী হিসেবে তিনি মিশিগান আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। ফিলিস্তিন থেকে যুক্তরাষ্ট্রে আসা এক পরিবারের ১৪ সন্তানের মধ্যে তিনি সবার বড়। ডেট্রয়িটে তার বাবা ফোর্ড মোটর কোম্পানির একটি প্রকল্পের কর্মী ছিলেন। ইতিহাস সৃষ্টিকারী এ দুই নারীই ব্যাপকভাবে ডেমোক্র্যাট প্রভাবিত এলাকা থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে নির্বাচিত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ওমর বিরাট ব্যবধানে জয় পেয়েছেন।

মার্কিন কংগ্রেসে প্রথম ২ আদিবাসী নারী : যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথমবার কংগ্রেসের সদস্য হতে যাচ্ছেন আদিবাসী দুই আমেরিকান নারী। মঙ্গলবারের মধ্যবর্তী নির্বাচনে জিতে কানসাসের শেরিস ডেভিডস ও নিউ মেক্সিকোর ডেবরা হাল্যান্ড এ ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন। আদিবাসী আমেরিকান এ দুই নারীই ডেমোক্র্যাট পার্টির প্রার্থী ছিলেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

সিএনএন বলছে, শেরিস আমেরিকার আদিবাসী হো-চাঙ্ক জাতির সদস্য আর ডেবরা এসেছেন পুয়েবলো অব লাগুনা থেকে। তাদের আসন দুটিতে ডেমোক্র্যাটরা বিজয়ী হবেন আগেই এমন ধারণা করা হচ্ছিল। এর মধ্যে কানসাসের ভোটাররা সাম্প্রতিক সময়ে ডেমোক্র্যাটদের দিকে ঝুঁকেছেন; নিউ মেক্সিকোর আসনটি আগে থেকেই ডেমোক্র্যাটদের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত ছিল। নিউ মেক্সিকোর ডেবরা জুন মাসে অনুষ্ঠিত পার্টির প্রার্থী বাছাই ভোটাভুটিতে জিতে ডেমোক্র্যাট পার্টির টিকিট পান।

অন্যদিকে কানসাসে আইনজীবী ও মিক্সড মার্শাল আর্ট খেলোয়াড় শেরিস লড়াই করেছেন রিপাবলিকান সাবেক কংগ্রেস সদস্য কেভিন ইয়োদেরের বিরুদ্ধে। আদিবাসী এ আমেরিকান কানসাস থেকে কংগ্রেসে যাওয়া প্রথম সমকামী প্রতিনিধি বলে জানিয়েছে মার্কিন গণমাধ্যম। এবারের নির্বাচনে জিতে প্রথমবারের মতো দুই মুসলিম নারীও কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য হয়েছেন। আদিবাসী ও মুসলমান নারীদের এ জয়কে দেশটির বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জন্য অশনিসংকেত হিসেবেই দেখছেন পর্যবেক্ষকরা। মধ্যবর্তী নির্বাচনকে ট্রাম্পের জন্য পরীক্ষা হিসেবেও দেখা হচ্ছিল, যে পরীক্ষার ফলাফল তার জন্য তিক্ত হয়ে দেখা দেবে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের।

"