১৬ বছর পর গীতা হাতে দেশে

প্রকাশ : ০৬ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

দীর্ঘ ১৬ বছর ভারতের বারাণসীর জেলে বন্দি ছিলেন পাকিস্তানি নাগরিক জালাল উদ্দিন। সাজা কাটিয়ে অবশেষে মুক্তি পেয়েছেন তিনি। তবে জেল থেকে বের হওয়ার সময় তিনি যা করলেন, তা অনেকেই ভাবেননি। কারাগারের বাইরে পা রাখার সময় তার হাতে ছিল একটি ভগবত গীতা।

সন্দেহজনক বেশ কিছু নথি মেলায় বারাণসীর ক্যান্টনমেন্ট এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। রোববার বারাণসীর সেন্ট্রাল জেল থেকে মুক্তি পান পাক নাগরিক জালালউদ্দিন। দীর্ঘদিন পর অবশেষে নিজের দেশে ফিরছেন তিনি। বারাণসীর সেন্ট্রাল জেলের অম্বরিশ গৌড় জানান, পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশের বাসিন্দা জালাল উদ্দিনকে ২০০১ সালে গ্রেফতার করা হয়েছিল। সন্দেহজনক কিছু নথিপত্রসহ ক্যান্টনমেন্টের এয়ারফোর্স অফিসের কাছ থেকে পাকড়াও করা হয়েছিল। তার কাছ থেকে ক্যান্টনমেন্ট এবং বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ জায়গার ম্যাপ উদ্ধার করা হয়েছিল। নাশকতার ছক ছিলÑ এই অভিযোগেই গ্রেফতার হন তিনি। এরপর আদালত তাকে ১৬ বছরের কারাবাসের নির্দেশ দেন।

অম্বরিশ গৌড় আরো জানান, অফিশিয়াল সিক্রেট অ্যাক্ট এবং ফরেনার্স অ্যাক্টের আওতায় গ্রেফতার হয়েছিলেন জালালউদ্দিন। দীর্ঘ ১৬ বছরে তার জীবনে অনেক পরিবর্তন এসেছে। গ্রেফতারের সময় হাইস্কুল পাস করেছিল সে। কারাবন্দি অবস্থাতেই ইন্দিরা গান্ধী উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ পাস করেন। এমনকি জেল ক্রিকেট লীগে তিন বছর আম্পায়ারিংও করেছেন। আর যেদিন মুক্তি পেলেন, সেদিন তার হাতে ছিল একটি ভগবত গীতা। হিন্দুধর্মের এই পবিত্র গ্রন্থই তাকে আলোর দিশা দেখিয়েছে বলে জেলের কর্মীরা জানিয়েছেন। পুলিশের একটি বিশেষ দল জালাল উদ্দিনকে অমৃতসর পৌঁছে দেয়। সেখান থেকে ওয়াঘা বর্ডার হয়ে নিজের দেশে ফিরবেন তিনি।

 

"