স্টর্মির মানহানি মামলা খারিজ

প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে পর্নো অভিনেত্রী স্টর্মি ডেনিয়েলসের করা একটি মানহানির মামলা খারিজ করে দিয়েছেন সেদেশের এক আদালত। সোমবার লস অ্যাঞ্জেলেসের ডিস্ট্রিক্ট আদালতের বিচারক জেমস ওটেরো মামলাটি খারিজ করে দেন বলে জানিয়েছে এনবিসি নিউজ। এক যুগ আগে ২০০৬ সালে ট্রাম্পের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল বলে দাবি করছেন চলচ্চিত্রে জগতে স্টর্মি ডেনিয়েলস নামে পরিচিত স্টিফানি ক্লিফোর্ড। শুরু থেকেই এ সম্পর্কের কথা অস্বীকার করে আসছেন ট্রাম্প। স্টিফানির দাবি, ২০১১ সালে একটি গসিপ ম্যাগাজিনকে ওই সম্পর্ক নিয়ে সাক্ষাৎকার দেওয়ার পর অজ্ঞাত এক ব্যক্তি তাকে এ বিষয়ে ‘চুপ থাকতে’ বলেছিলেন; ট্রাম্পকে ছেড়ে না দিলে ‘খারাপ কিছুর মুখোমুখি হতে হবে’ বলে হুমকিও দিয়েছিলেন।

চলতি বছরের এপ্রিলে ওই অজ্ঞাত ব্যক্তির মুখাবয়বের স্কেচ পেতে এক ফরেনসিক শিল্পীর সঙ্গে কাজ শুরু করেন স্টিফানি। যার কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়ে টুইটারে ট্রাম্প লেখেন, অস্তিত্বই নেই এমন একজনের স্কেচ এত বছর পর আঁকা। পুরোপুরি প্রতারণা, বোকাদের জন্য জালিয়াত সংবাদ মাধ্যমকে নিয়ে খেলা (যদিও তারা জানে)! ট্রাম্পের ওই মন্তব্যে মানহানি হয়েছে দাবি করে এর বিরুদ্ধে মামলা করেন স্টিফানি। সোমবারের রায়ে বিচারক ওটেরো বলেন, মার্কিন রাজনীতি এবং সাধারণের পরিমন্ড-লে এ ধরনের পাল্টা কথা ছুড়ে দেওয়া প্রচলিত। প্রথম সংশোধনী এ ধরনের পাল্টা মন্তব্যকে সুরক্ষা দিয়ে আসছে, মামলা খারিজ করে বলেন বিচারক। রায়ের বিরুদ্ধে স্টিফানি আপিল করবেন বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী মাইকেল অ্যাভেনাত্তি। মানহানির মামলা খারিজ হলেও ট্রাম্প ও তার সাবেক আইনজীবী মাইকেল কোহেনের বিরুদ্ধে স্টিফানির করা অন্য মামলায় এর কোনো প্রভাব পড়বে না বলেও টুইটারে জানিয়েছেন তিনি। ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে ট্রাম্পের সঙ্গে সম্পর্ক বিষয়ে চুপ থাকতে কোহেন তাকে ১ লাখ ৩০ হাজার ডলার দিয়েছিলেন বলে ভাষ্য স্টর্মির। যে ‘অপ্রকাশিত চুক্তি’র বলে ওই অর্থ দেওয়া হয়েছিল, তা অকার্যকর করার আবেদন জানিয়ে মামলাটি করেছিলেন তিনি। ট্রাম্প ও কোহেনের আইনজীবীরা গত মাসে এ মামলায় যেসব নথি জমা দিয়েছেন, তাতে চুক্তিটি বাস্তবায়নে তাদের আর আগ্রহ নেই এমন ইঙ্গিত আছে বলে জানিয়েছে এনবিসি। পাল্টা যুক্তিতে অ্যাভেনাত্তি জানান, মামলাটি যেকোনো মূল্যে চালিয়ে নিতে তিনি ও তার মক্কেল বদ্ধপরিকর।

"