মুক্তির পর তুরস্ক থেকে দেশে ফিরলেন মার্কিন ধর্মযাজক ব্রানসন

প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

তুরস্কের আদালতে মুক্তির পর দেশে ফিরেছেন মার্কিন ধর্মযাজক অ্যান্ড্রু ব্রানসন। শুক্রবার জার্মানিগামী যুক্তরাষ্ট্রের একটি সামরিক বিমানে তিনি তুরস্ক ত্যাগ করেন। মার্কিন প্রেসিডেন্টের আবাসিক দফতর হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, শনিবার ম্যারিল্যান্ডের সামরিক ঘাটিতে পৌঁছাবেন ব্রানসন। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা। আদালতে মুক্তি পাওয়ার পর প্রথমে তুরস্কের নিজ বাসায় যান ব্রানসন। পরে স্ত্রীকে নিয়ে বিমানবন্দর ত্যাগ করেন। এক বিবৃতিতে ব্রানসন বলেন, এই দিনটির জন্য আমার পরিবারের সদস্যরা প্রার্থনা করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের পথে যাত্রা করতে পেরে আমি আনন্দিত। তুরস্কের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের উত্তেজনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন অ্যান্ড্রু ব্রানসন। ২০১৬ সালে তুরস্কে ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানে জড়িত থাকার দায়ে আটক হয়েছিলেন অ্যান্ড্রু ব্রানসন নামের ওই ধর্মযাজক।

তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদ ও গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ আনে আঙ্কারা। পরে তাকে দোষী সাব্যস্ত করে গৃহবন্দি রাখার নির্দেশ দেয় তুর্কি আদালত। গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন ব্রানসন, এই অভিযোগ প্রমাণ হলে ৩৫ বছরের কারাদন্ড হতে পারে তার।

দীর্ঘ সময় ধরে তুরস্কে বসবাস করছেন ব্রানসন। স্ত্রী ও তিন ছেলেমেয়ে নিয়ে ইজমিরের একটি চার্চে কাজ করেন তিনি। তুর্কি কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে দেশটির বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন কুর্দিস্তান ওয়ার্কাস পার্টি (পিকেকে) এবং ২০১৬ সালে এরদোয়ান সরকারের বিরুদ্ধে ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানে জড়িত গুলেনপন্থিদের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ আনে।

ব্রানসনকে আটকের পর দুই ন্যাটো মিত্র ওয়াশিংটন ও আঙ্কারার মধ্যে সম্পর্কে টানাপড়েন তৈরি হয়। একে অপরের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞাও আরোপ করে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের তথ্যমতে, দুই বছর আগের ওই ব্যর্থ অভ্যুত্থানের জন্য ২০ জন মার্কিন নাগরিককে অভিযুক্ত করেছে তুরস্ক। অ্যান্ড্রু ব্রানসন তাদেরই একজন।

 

"