‘কিমের সঙ্গে দ্বিতীয় বৈঠক মধ্যবর্তী নির্বাচনের পর’

প্রকাশ : ১২ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, আগামী ৬ নভেম্বরে মার্কিন কংগ্রেস নির্বাচনের পর তিনি উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে দ্বিতীয় বৈঠকে বসবেন। মঙ্গলবার আইওয়ায় রাজনৈতিক সমাবেশে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘মধ্যবর্তী নির্বাচনের পর বৈঠক হবে। এখন আমি যেতে পারছি না।’

এর আগে ট্রাম্প সাংবাদিকদেরকে কিমের সঙ্গে ফের বৈঠক করার পরিকল্পনা চলছে এবং উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের আলোচনাতেও ‘অভাবনীয়’ অগ্রগতি হয়েছে বলে জানিয়েছিলেন। তিনি জানান, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এ সপ্তাহে পিয়ংইয়ং সফরকালে কিমের সঙ্গে ভালোভাবেই আলোচনা করেছেন। আর বৈঠকের জন্য তিন-চারটি স্থানের কথা ভাবা হচ্ছে। তাছাড়া, যুক্তরাষ্ট্র এবং উত্তর কোরিয়া দুপক্ষই দ্বিতীয় বৈঠকের খুঁটিনাটি বিষয় নিয়ে মতৈক্যের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে বলে গত সোমবার জানান পম্পেও। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিমের প্রথম বৈঠকটি হয়েছিল গত ১২ জুনে সিঙ্গাপুরে।

ওই বৈঠকে কিম কোরিয়া উপদ্বীপ পারমাণবিক অস্ত্র মুক্ত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।

এরপর উত্তর কোরিয়া পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের কাজ শুরু করলেও তাতে ধীরগতির কারণে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনায় অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়। পরে কিম নিরস্ত্রীকরণ দ্রুত করার জন্য ফের শীর্ষ বৈঠকের আগ্রহ প্রকাশ করলে ট্রাম্প এতে সাড়া দেন। যুক্তরাষ্ট্র বলছে, উত্তর কোরিয়ার নিরস্ত্রীকরণে এখনো অনেক কাজ বাকী থাকলেও চূড়ান্ত লক্ষ্যে পৌঁছানোর পথ তৈরি হয়েছে।

হোয়াইট হাউসের ওভাল অফিসে ট্রাম্প বলেছেন, ‘কোনো রকেট উড়তে দেখা যাচ্ছে না, ক্ষেপণাস্ত্র ছুটতে দেখা যাচ্ছে না, কোনো পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষা হচ্ছে না। ফলে বিস্ময়কর অগ্রগতি হয়েছে। আমি সাক্ষাৎ করতে রাজি হয়েছি। চেয়ারম্যান কিমের সঙ্গে আমার খুব ভালো সম্পর্ক আছে। আমি তাকে ভালোবাসি। তিনিও আমাকে ভালোবাসেন।’

 

"