ভোপালে শিশুসদনে ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগে মালিক গ্রেফতার

প্রকাশ : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের মধ্যপ্রদেশের ভোপালে ব্যক্তি মালিকানাধীন একটি প্রতিবন্ধী শিশু আশ্রয় কেন্দ্র কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ৩ শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ উঠেছে। ওই আশ্রয় কেন্দ্রের ৩ বালক ও ২ বালিকা প্রথম ‘সোশ্যাল জাস্টিস ডিপার্টমেন্টের’ কাছে এ অভিযোগ করে। পরে তারা থানায় এফআইআর করেছে বলে জানায় এনডিটিভি। শিশুদের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ আশ্রয় কেন্দ্রের মালিক ৭০ বছরের এক সাবেক সেনাসদস্যকে গ্রেফতার করেছে।

শিশুদের অভিযোগ, সদনের এক বালক ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মারা গেছে। আরেক শিশুকে যৌন নিপীড়নের সময় দেয়ালে জোরে মাথা ঠুকে তার মৃত্যু হয়। প্রচন্ড ঠান্ডার মধ্যে তৃতীয় আরেক শিশুকে রাতে বাইরে থাকতে বাধ্য করা হলে সেখানে সে মারা যায়। ওই আশ্রয় কেন্দ্রটি ১৯৯৫ সাল থেকে নিবন্ধিত এবং কেন্দ্র পরিচালনার জন্য নিয়মিত তহবিল পায়। সেখানে ৪২ বালক এবং ৫৮ বালিকা বসবাস করে। তাদের বেশিরভাগই শ্রবু ও বাকপ্রতিবন্ধী, ২০০৩ সাল থেকে তারা সেখানে বাস করছে।

গত ১০ বছর ধরে সেখানে স্থায়ী তত্ত্বাবধায়ক না থাকায় চারজন শিক্ষক কেন্দ্রটির দেখাশোনা করেন।

সোশ্যাল জাস্টিক ডিপার্টমেন্টের পরিচালক কৃষ্ণা মোহন তিওয়ারি বলেন, শ্রবু ও বাকপ্রতিবন্ধী কয়েকজন শিক্ষার্থী সঙ্গে ইশারা ভাষা বোঝেন এমন একজনকে নিয়ে আমাদের অফিসে আসে। তারা হোস্টেলের মালিকের বিরুদ্ধে শারীরিক ও যৌন নিপীড়নের অভিযোগ লেখা একটি চিঠি দেয়। আমরা এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কালেক্টর এবং জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তাদের চিঠি লিখেছি। গত মাসে মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যের সব আশ্রয় কেন্দ্র ও এতিম খানার পরিবেশের ওপর নজর রাখতে মাসিক তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

"