যুক্তরাষ্ট্রে মানবাধিকার সংকট দেখা দিয়েছে : অ্যামনেস্টি

প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক সহিংসতার ঘটনা মানবাধিকার সংকটে পরিণত হয়েছে বলে নতুন এক প্রতিবেদনে মন্তব্য করেছে মানবাধিকার গ্রুপ অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। মঙ্গলবার প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংস্থাটি বলেছে, প্রতি বছর যুক্তরাষ্ট্রে বিপুলসংখ্যক মানুষ বন্দুক সহিংসতায় নিহত বা আহত হচ্ছে যা বিস্ময়কর। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সরকার বন্দুক সহিংসতাকে মানবাধিকার সংকটে পরিণত হতে দিচ্ছে।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাটির বলছে, বন্দুক সংশ্লিষ্ট সহিংসতায় ২০১৬ সালে গড়ে প্রতিদিন ১০৬ জন মানুষ মারা গেছে। ওই বছর বন্দুক সংশ্লিষ্ট ঘটনায় মোট ৩৮ হাজার ৬৫৮ জন মারা যায়। এর মধ্যে প্রায় ২৩ হাজার ছিল আত্মহত্যা, ১৪ হাজার ৪০০র বেশি ছিল হত্যাকান্ড। এ ছাড়া অনিচ্ছাকৃতভাবে এবং আইনি হস্তক্ষেপের কারণেও ১ হাজার ৩০৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে বন্দুক সহিংসতার কারণে আহত হয়েছে এক লাখ ১৬ হাজারেরও বেশি মানুষ।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বন্দুক সহিংসতায় বেঁচে যাওয়া অনেকেই যে মানসিক, শারিরীক, পারিবারিক ও অর্থনৈতিক আঘাত পান সারাজীবনেও তা পূরণ করতে পারেন না। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জনস্বাস্থ্য সংকটের বড় একটি অংশজুড়ে বন্দুক সহিংসতা থাকলেও এ বিষয়ে সরকারের প্রতিক্রিয়া খুবই সামান্য। চলতি বছর অন্যান্য স্থানের পাশাপাশি ম্যারিল্যান্ড, টেক্সাস ও ফ্লোরিডায় অনেকে বন্দুক সহিংসতার শিকার হওয়ার পর বন্দুক আইন কঠোর করার দাবি ওঠে।

ফেব্রুয়ারিতে ফ্লোরিডার ডগলাস হাইস্কুলে ১৯ বছর বয়সী নিকোলাস ক্রুজ নামেএক সাবেক শিক্ষার্থীর বন্দুক হামলায় ১৭ জন নিহত হয়। তিনমাস পর টেক্সাসের সান্টা ফে স্কুলের বাইরে এক তরুণের হামলায় ১০ জন নিহত হয়। এসব হত্যাকান্ডের পর যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে রাস্তায় নেমে বন্দুক আইন কঠোরের দাবি তোলে শিক্ষার্থীরা। গত বছর নেভাদায় এক কনসার্টে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। ওই কনসার্টে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত হয় ৫৮ জন।

"