উ. কোরিয়াকে নজরে রাখবে অস্ট্রেলিয়া নিউজিল্যান্ড

প্রকাশ : ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

উত্তর কোরিয়ার ওপর জারি করা জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা সঠিকভাবে পালিত হচ্ছে কিনাÑতা নজরদারি করতে অস্ট্রেলিয়া বিমান পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দেশটির দুটি বিমান উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে নিষিদ্ধ বাণিজ্যে জড়িত জাহাজের ওপর নজর রাখবে। অস্ট্রেলিয়ার দুটি বিমানের সঙ্গে যোগ দেবে নিউজিল্যান্ডের আরেকটি বিমান। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, নজরদারি কার্যক্রমে যুক্ত থাকাকালীন বিমানগুলো জাপানের কাদেনা ঘাঁটি ব্যবহার করবে।

অস্ট্রেলিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী ক্রিস্টোফার পাইন এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, অস্ট্রেলিয়া পাঠাবে এপি-৩জি ওরিয়ন মেরিটাইম পেট্রল বিমান। উত্তর কোরিয়া জাতিসংঘের জারি করা নিষেধাজ্ঞা সঠিকভাবে মেনে চলেছে কিনা-তা নজরদারি করার জন্য অস্ট্রেলিয়া আগেও একটি বিমান পাঠিয়েছে। এ বছরের শুরুতেই সেটিকে নজরদারির কাজে মোতায়েন করা হয়। পাইনের ভাষ্য, ‘এই সিদ্ধান্ত নিষেধাজ্ঞা ফাঁকি দিয়ে উত্তর কোরিয়ার অবৈধ বাণিজ্য চালিয়ে যাওয়ার বিরুদ্ধে অস্ট্রেলিয়ার ধারাবাহিক প্রতিরোধের অংশ।’

অন্যদিকে নিউজিল্যান্ডের ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন পিটার্স জানিয়েছেন, দেশটির বিমানবাহিনী একটি পি-৩-কে২ বিমান পাঠাবে, যার উদ্দেশ্য জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা অমান্য উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে বাণিজ্যে ব্যবহৃত জাহাজের ওপর নজর রাখা।

এমনকি মাঝ সমুদ্রে জাহাজ থেকে জাহাজে পণ্য ওঠানো নামানোর ঘটনা ঘটছে কি না, তাও তাদের নজরদারির আওতায় থাকবে। পিটার্সের ভাষ্য, ‘দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার সম্প্রতি যে আলোচনা হয়েছে, তাকে আমরা স্বাগত জানাই। কিন্তু যতক্ষণ পর্যন্ত উত্তর কোরিয়া আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি তার দায়িত্ব পালন না করবে তত দিন জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ঘোষিত নিষেধাজ্ঞা কার্যকর থাকা উচিত।’

পারমাণবিক অস্ত্র ও দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র উৎপাদন বন্ধ করতে উত্তর কোরিয়ার ওপর চাপ অব্যাহত রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। ট্রাম্প-কিম সম্মেলনের ধারাবাহিকতায় মার্কিন কর্মকর্তারা নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে। দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গেও দেশটির সম্পর্ক কিছু কিছু ক্ষেত্রে আগের চেয়ে বেশি উন্মুক্ত হয়েছে। কিন্তু পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণে যথেষ্ট অগ্রগতি না হওয়ার বিষয়ে ট্রাম্প অসন্তোষ প্রকাশ করলে মার্কিন কূটনীতিকদের উত্তর কোরিয়া পূর্বনির্ধারিত একটি সফর স্থগিত হয়ে যায়।

"