আহেদ তামিমির বিদেশ ভ্রমণে ইসরায়েলি নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশ : ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলনের কর্মী আহেদ তামিমির বিদেশ ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ইসরায়েল। ফিলিস্তিনি প্রতিরোধের অন্যতম পরিচিত মুখ হয়ে ওঠা তামিমির পাশাপাশি তার পরিবারের বিরুদ্ধেও ওই নিষেধাজ্ঞা বলবৎ হয়েছে। শুক্রবার তার বাবা বাসিম আল তামিমি তুর্কি বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সিকে বলেছেন, তারা জর্ডান হয়ে ইউরোপ সফরে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। পরে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ তাদের ইসরায়েলি নিষেধাজ্ঞার কথা জানিয়েছে।

ফিলিস্তিনি তরুণী আহেদ তামিমি ইসরায়েলি এক সেনাসদস্যকে চড় মেরেছিলেন। এর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা ইসরায়েলের সাধারণ নাগরিক থেকে শুরু করে রাজনীতিবিদদেরও ক্ষুব্ধ করে তোলে। তাকে এমন কি গুলি করে মেরে ফেলার দাবিও উঠেছিল ইসরায়েলে। গত ডিসেম্বরে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সে সময় তার বয়স ছিল ১৭ বছর। আট মাস কারাভোগের পর গত ২৯ জুলাই ছাড়া পান তিনি।

ইউরোপে ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন ও ইসরায়েলি জেলে তামিমির কারাভোগের বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য নির্ধারিত কিছু অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার কথা ছিল তামিমির। কিন্তু ইসরায়েল তাদের বিদেশ সফরের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। নিষেধাজ্ঞার কারণ ব্যাখ্যা করে কোনো কিছু বলেনি ইসরায়েল।আহেদের বাবা ইরানের রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত সংবাদমাধ্যম প্রেস টিভিকে বলেছেন, ইরান যে ফিলিস্তিনের শত্রুদের সঙ্গে মিলে অঞ্চলটিকে বিভক্ত করে ফেলার চক্রান্ত করছে, আহেদ তামিমি সফরে যেতে পারলে সে বিষয়ে বিস্তারিত বক্তব্য তুলে ধরতে পারতেন। আর সে ভয়েই তার ওপর বিদেশ ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।মিডিল ইস্ট আই লিখেছে, ফিলিস্তিনের আহেদ তামিমি যেন ছোট কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে বড় কাগারে ঢুকেছেন।

 

"