এক মাসের মধ্যে ভারতকে চাবাহার বন্দর হস্তান্তর

প্রকাশ : ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতীয় একটি প্রতিষ্ঠানকে চাবাহার বন্দর দেখাশোনার দায়িত্ব দিতে যাচ্ছে ইরান। দেশটির সড়ক ও নগর উন্নয়নবিষয়ক মন্ত্রী আব্বাস আখুন্দি বৃহস্পতিবার এই কথা জানান। বর্তমানে মাসিক সম্মেলনে অংশ নিতে ভারতে অবস্থান করা এই মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা অন্তর্বর্তীকালীন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ভারতীয় প্রতিষ্ঠানকে চাবাহার বন্দর হস্তান্তর করতে প্রস্তুত।’

গত বছরের শেষ দিকে ওমান উপসাগরের উপকূলে অবস্থিত চাবাহার বন্দরের প্রথম পর্যায় উদ্বোধন করা হয়। এই বন্দর পাকিস্তানকে এড়িয়ে ভারত, ইরান ও আফগানিস্তানের মধ্যে একটি কৌশলগত পরিবহন রুট তৈরি করেছে। চাবাহার বন্দরের উন্নয়নে ভারত একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার। ভারত এই বন্দরকে চীনা বিনিয়োগে নির্মিত পাকিস্তানের গোয়াদার বন্দরের পাল্টা হিসেবে বিবেচনা করছে। চাবাহার বন্দর যৌথভাবে উন্নয়নের জন্য ২০১৬ সালে ইরান, ভারত ও আফগানিস্তান একটি ত্রিপক্ষীয় চুক্তি সই করে।

পাকিস্তানের দক্ষিণ-পশ্চিম জলসীমার খুব কাছে অবস্থিত চাবাহার বন্দরের আধুনিকীকরণ ও সম্প্রসারণে বড় অঙ্কের বিনিয়োগ করে ভারত। বিনিময়ে মেলে চাবাহার বন্দর ব্যবহারের অধিকার। এই বন্দর থেকে ৭২ কিলোমিটার দূরে পাকিস্তানে চীন গদর বন্দর নির্মাণ করছে ফলে চাবাহার বন্দরটি ভারতের কাছে ও মধ্য এশিয়া ও আফগানিস্তান এর কাছে গুরত্বপূর্ণ। পাকিস্তানকে বাইপাস করে এই বন্দরের সাহায্যেই ইরান ও আফগানিস্তানের সঙ্গে বাণিজ্য করতে পারবে ভারত।

আব্বাস আহমেদ আখুয়োন্দি বলেন, বন্দর নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ হয়ে গিয়েছে। আশা করছি আগামী এক মাস সময়ের মধ্যে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের হাতে সম্পূর্ণ পরিচালনাভার তুলে দেওয়া সম্ভব হবে। তিনি বলেন, অবশ্যই এর মাধ্যমে দুই দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্কে প্রভাব পড়বে। কোনও নিষেধাজ্ঞায় আমাদের তেল বিক্রি বন্ধ থাকবে না।

আখুন্তি আরো বলেন, দিন শেষে আমরা আমাদের পারষ্পরিক সম্পর্কই দেখব। ভারতের পক্ষ থেকে আমাদের বলা হয়েছে তারা চাল ও অন্যান্য খাদ্যদ্রব্য আমদানির মাধ্যমেও আমাদের বাণিজ্যিক সম্পর্ক অটুট রাখবে।

"