কিন্ডারগার্টেনে পোল ডান্স

প্রকাশ : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

যে দেশে গুগল, ফেসবুকের ওপর নানা বিধিনিষেধ। সেই রক্ষণশীল দেশের স্কুলে এমন কা- ঘটে যাবে কেউ বোধহয় স্বপ্নেও ভাবেননি। কিন্তু ব্যাপারটা ঘটল কীভাবে! ভেবেই তাজ্জব অনেকে। অস্বাভাবিক এই ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে সময় নেয়নি। কিন্তু ঘটনাটি ঠিক কী ছিল? সপ্তাহের প্রথম দিন, দক্ষিণ চীনের শেনঝেন শহরের কিন্ডারগার্টেন স্কুলটিতে ছিল নতুন ক্লাসের প্রথম দিন। ঝকঝকে ইউনিফর্ম পরে মা-বাবার হাত ধরে প্রথম দিন স্কুলে আসা। কারো আবার নতুন ক্লাসে ওঠা। স্কুল চত্বর গমগম করছিল শ’ পাঁচেক কচিকাঁচার কোলাহলে। এর মধ্যেই শুরু হয়ে গেল ওয়েলকাম ডান্স। যে সে ডান্স নয়। পোল ডান্স। অভিভাবকদের কারো কারো কাছে এই দৃশ্য পরিচিত হলেও গুটি গুটি পায়ে স্কুলে আসা বাচ্চারা এ রকম নাচ আগে দেখেনি। যে স্তম্ভের গায়ে জাতীয় পতাকা উড়ছে, সেই ¯ত্মম্ভর ধরেই অদ্ভুত অঙ্গভঙ্গি করছেন স্বল্পবাস এক মহিলা। কেউ কেউ অস্বস্তিতে মা কে জড়িয়ে ধরল। কেউ হেসে উঠল খিলখিল করে। স্কুল কর্তৃপক্ষের এই কা- কারখানায় বিরক্ত অনেক অভিভাবকই ছুটেছিলেন স্কুলের প্রিন্সিপাল লাই রংয়ে কাছে। বাচ্চাদের স্কুল ছাড়িয়ে দেওয়ারও হুশিয়ারি দেন অনেক অভিভাবক। কিন্তু প্রথমে লাই রং ঘটনার যা ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন তাতে অনেকেরই চোখ কপালে ওঠে। এমন ধারার নাচও যে হয়, বাচ্চাদের তা জানাতেই নাকি পোল ডান্সের ভাবনা। ডান্সারও নাকি ছিলেন অসাধারণ তাই তিনি এই অনুষ্ঠানে না করেননি। তার ওপর বাচ্চাদের স্কুলে ছাড়তে আসা অভিভাবকদের মুড ভালো করাও তার এই উদ্যোগের একটা কারণ।স্কুলে পোল ডান্সের ভিডিও ছড়িয়ে পড়তেই নড়েচড়ে বসে স্থানীয় শিক্ষা নিয়ামক সংস্থা। চাপে পড়ে ক্ষমা চান স্কুলের প্রিন্সিপাল। কিন্তু তাতে আর চিড়া ভেজেনি। পরে তাকে বরখা¯ত্ম করা হয়।

অবশ্য চীনের সরকারি সংবাদমাধ্যমকে প্রিন্সিপাল রং বলেন, অনেক অভিভাবক নাকি তার উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন।

"