মার্কিন অর্থায়ন কমার ঘোষণায়

ফিলিস্তিনি শরণার্থী তহবিলে অনুদান বৃদ্ধি দাতাদের

প্রকাশ : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের সহায়তার জন্য গঠিত জাতিসংঘের ত্রাণ তহবিলে (ইউএনআরডব্লিউএ) যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিশ্রুত আর্থিক সহায়তার পরিমাণ অর্ধেকে কমিয়ে আনার সিদ্ধান্তের মধ্যে সংস্থাটিতে অনুদান বৃদ্ধির করার পরিকল্পনা করছে অন্য দাতারা। ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ), আয়ারল্যান্ড, জর্ডান ও জার্মানি জানিয়েছে, তারা সংস্থাটিতে অতিরিক্ত ৩০ কোটি ডলার অনুদান দেবে।

ইউএনআরডব্লিউএ’র কমিশনার-জেনারেল পিয়েরে ক্রাহেনবুল বলেছেন, সংস্থাটিতে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থায়ন কমিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তটি ‘মানবিক সহায়তার রাজনীতিকীকরণের’ সুস্পষ্ট প্রমাণ। সংস্থাটির কর্মীদের উদ্দেশ্যে লেখা এক খোলা চিঠিতে এমনটা জানান ক্রাহেনবুল।

ইউএনআরডব্লিউএ জর্ডান, সিরিয়া ও লেবাননের মতো দখলিকৃত অঞ্চলগুলোতে ৫০ লাখের বেশি ফিলিস্তিনি শরণার্থীকে সহায়তা প্রদান করে থাকে। সম্প্রতি সংস্থাটিতে ৩০ কোটি ডলার অর্থায়ন কমানোর সিদ্ধান্ত দেয় তাদের সবচেয়ে বড় দাতা দেশ যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন সহায়তা কমার কারণে সংস্থাটি বর্তমানে ২৭ কোটি ডলার বাজেট ঘাটতিতে ভুগবে এই বছর।

শরণার্থী সংস্থাটিকে অবিশ্বাস্য রকমের ত্রুটিপূর্ণ উল্লেখ করে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে জানায়, এই বোঝা যুক্তরাষ্ট্র আর বহন করতে চায় না।

ইহুদিবাদী ইসরায়েল রাষ্ট্র গঠনের লক্ষ্যে ইহুদিদের বিভিন্ন আধা সামরিক বাহিনী কর্তৃক ৭ লাখ ফিলিস্তিনিকে জোরপূর্বক উচ্ছেদের পর ১৯৪৯ সালে (ইউএনআরডব্লিউএ) গঠন করা হয়। গত বছরে সংস্থাটিতে অনুদান দেয় ৫০টিরও বেশি দেশ। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রের সংস্থাটিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দাতা হিসেবে পরিচিত পেয়েছে ইইউ। ২০১৭ সালে জোটটি ১৪ কোটি ৬০ লাখেরও বেশি অর্থ প্রদান করেছে।

গত শনিবার এক বিবৃতিতে ইইউ বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের অর্থায়ন কমানোর সিদ্ধান্তটি ‘দুঃখজনক’। এটি সংস্থাটির অর্থায়নে একটি ব্যাপক ঘাটতি সৃষ্টি করবে।

 

ইইউ বলেছে, সংস্থাটির কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে ও স্থিতিশীলতা ধরে রাখতে ইইউ তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষার প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। ইইউ ছাড়া জর্ডান, জার্মানি, আয়ারল্যান্ড ও কাতারও সংস্থাটিতে অনুদান বৃদ্ধির কথা জানিয়েছে।

"