ইসরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জড়াতে পারে তুরস্ক

প্রকাশ : ১০ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইরানের সঙ্গে ইসরায়েলের সরাসরি যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ার বিষয়ে তেল আবিবকে হুশিয়ার করে দিয়েছে ইসরায়েলের সাবেক উপ জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এরান ইতজিওন।

তিনি বলেন, ইরানের সঙ্গে সরাসরি বিরোধে জড়িয়ে পড়া তেল আবিবের উচিত হবে না। সিরিয়া দুই পক্ষের সংঘর্ষ নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি। ইসরায়েলের দৈনিক হারেৎজ তার বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে। সিরিয়া থেকে ইরানি সেনাদের সম্পূর্ণ হটিয়ে দেয়ার জন্য চেষ্টা করছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। বিষয়টি নিয়ে এরান ইতজিওন বলেন, এটা করতে গেলে যুদ্ধ লেগে যেতে পারে এবং সেই যুদ্ধে তুরস্ক জড়িয়ে পড়তে পারে বলেও আশংকা ব্যক্ত করেন তিনি।

খবরে বলা হয়েছে, সিরিয়ায় নাটকীয় কিছু ঘটছে এবং এই প্রথমবারের মতো ইসরায়েল ও ইরানের মধ্যে সরাসরি সামরিক সংঘাত ঘটছে। এ সংঘাত সরাসরি যুদ্ধে রূপ নিতে পারে বলেও আশংকা ব্যক্ত করেন তিনি। তিনি বলেন, এমন যুদ্ধ সব ভাবেই চলতে পারে।

তিনি আরো বলেন, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু অব্যাহতভাবে বলছেন যে তেলআবিবের লক্ষ্য হলো গোটা সিরিয়া থেকে ইরানিদের হটিয়ে দেয়া।

অন্যরা সবাই একই বক্তব্যের প্রতিধ্বনি করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ লক্ষ্য অর্জন করার ক্ষমতা ইসরায়েলের নেই। এ লক্ষ্য অর্জন করতে গেলে যুদ্ধ বেঁধে যাওয়ার আশংকা রয়েছে বলে জানান তিনি।

তুরস্কে সশস্ত্র বাহিনীর আরো হাজার হাজার সদস্য বহিষ্কার : তুরস্কে ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানে জড়িত থাকার অভিযোগে আরো ১৮ হাজার ৬৩২ সরকারি কর্মকর্তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এর মধ্যে বেশিরভাগই সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য। গত রোববার ওই কর্মকর্তাদের বহিষ্কারাদেশের বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

সরকারের গেজেটে বলা হয়েছে, দুই বছর আগে তুরস্কে ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানে জড়িত থাকায় তাদের চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। বহিষ্কৃতদের মধ্যে ৮ হাজার ৯৯৮ জন পুলিশ কর্মকর্তা, ৩ হাজার ৭৭ জন সেনা কর্মকর্তা ও বিমান বাহিনীর ১ হাজার ৯৪৯ জন কর্মকর্তা রয়েছেন।

এছাড়া দেশটির তিনটি সংবাদপত্র, একটি টেলিভিশন চ্যানেল ও ১২টি সংগঠন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। প্রেসিডেন্ট হিসেবে দ্বিতীয় মেয়াদে রিসেফ তাইয়েপ এরদোয়ানের শপথ গ্রহণের একদিন আগে এ পদক্ষেপ নেয়া হলো। দু-একদিনের মধ্যে জরুরি অবস্থা তুলে নেয়া হতে পারে বলেও খবর বেরিয়েছে। এ কারণে এটি সর্বশেষ গণবহিষ্কারাদেশও হতে পারে। ২০১৬ সালে ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকেই দেশটিতে জরুরি অবস্থা জারি রয়েছে। প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে উৎখাতের লক্ষ্যে দেশটিতে সামরিক অভ্যুত্থানের চেষ্টা করে সশস্ত্র বাহিনী। আমেরিকায় স্বেচ্ছানির্বাসিত তুর্কি নেতা ফতেহউল্লাহ গুলেনের নেতৃত্বে ওই অভ্যুত্থান চেষ্টা হয় বলে আঙ্কারা ঘোষণা করেছে। তবে গুলেন সেই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।

"