বনানী ছাত্রী ধর্ষণ

সাফাতসহ পাঁচজনের অভিযোগ গঠনের শুনানি ৯ জুলাই

প্রকাশ : ২০ জুন ২০১৭, ০০:০০

আদালত প্রতিবেদক

বনানীর রেইনট্রি হোটেলে দুই তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাত আহমেদ ও তার দুই বন্ধুসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি হবে ৯ জুলাই। আলোচিত এ মামলায় পুলিশের দেওয়া অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে ঢাকার দুই নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ সফিউল গতকাল সোমবার অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য এই দিন ঠিক করে দেন।

আদালতে উপস্থিত পাঁচ আসামির পক্ষে আইনজীবীরা এদিন জামিনের আবেদন করলেও বিচারক তা নাকচ করে দেন বলে এ আদালতের রাষ্ট্রেপক্ষের কৌঁসুলি আলী আকবর জানান। বাদীপক্ষে ছিলেন জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির ফাহমিদা আক্তার রিংকি। আর আসামি পক্ষে শুনানি করেন মাহবুব আহমেদ, কাজী নজিবুল্লাহ হিরু ও আবদুর রহমান হাওলাদার। মামলার আসামিরা হলেন- আপন জুয়েলার্সের অন্যতম মালিক দিলদার আহমেদের ছেলে সাফাত আহমেদ, তার বন্ধু ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান ‘ই-মেকার্স’ এর কর্মকর্তা নাঈম আশরাফ, ঢাকার পিকাসো রেস্তোরাঁর অন্যতম মালিক রেগনাম গ্রুপের এমডি মোহাম্মদ হোসেন জনির ছেলে সাদমান সাকিফ এবং সাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল হোসেন ও দেহরক্ষী রহমত আলী।

সাফাত ও নাঈম ধর্ষণে সরাসরি অংশ নেন এবং বাকি তিনজন তাদের সহযোগিতা করেন বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের ভিক্টিম সাপোর্ট সেন্টারের পরিদর্শক ইসমত আরা এমি।

গত ৬ মে বনানী থানায় অভিযোগ দায়েরের পর ৮ জুন ঢাকার হাকিম আদালতে এই অভিযোগপত্র দেন তিনি। সেখানে বাদীপক্ষে মোট ৪৭ জনকে সাক্ষী করা হয়। সাফাতের জন্মদিনের পার্টির কথা বলে গত ২৮ মার্চ রাতে বনানীর রেইনট্রি হোটেলে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ওই দুই তরুণীকে ধর্ষণ করা হয় বলে এ মামলার অভিযোগ।

মামলা হওয়ার পর দেশজুড়ে আলোচনার মধ্যে অভিযোগ আসে পুলিশের বিরুদ্ধেও।

"