নির্বাচন হলেই গণতন্ত্র হয় না

ড. কামাল

প্রকাশ : ১৭ জুন ২০১৭, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

গণফোরামের সভাপতি ও সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. কামাল হোসেন বলেছেন, নির্বাচন হলেই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হয় না। নির্বাচনে বিজয়ীরা কিভাবে শাসনব্যবস্থা পরিচালনা করেন, তার ওপর গণতন্ত্র নির্ভর করে। গতকাল শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল এ কথা বলেন। প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে গণফোরাম ওই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে কামাল হোসেন বলেন, পদ্ধতিগত ভুলের কারণে সরকারের ভেতর থেকেও প্রস্তাবিত বাজেটের সমালোচনা হচ্ছে। বাজেট সম্পর্কে ইতোমধ্যেই বিভিন্নজন যে মতামত দিয়েছেন, তার প্রতি সম্মান রেখে প্রস্তাবিত বাজেট সংশোধন করতে হবে। তিনি বলেন, আলোচনা করে, ঐকমত্যের ভিত্তিতে বাজেট করলে তা বাস্তবায়নও সহজ হতো। ব্যাংক আমানতের ওপর শুল্ক ধার্য ও বিচার বিভাগে বরাদ্দ কমানোরও সমালোচনা করেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী। এ সময় দলটির আরেক নির্বাহী সভাপতি মফিজুল ইসলাম কামাল, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে সুব্রত চৌধুরী বলেন, প্রস্তাবিত বাজেট সম্পর্কে ইতোমধ্যেই অনেক প্রশ্ন উত্থাপিত হয়েছে। এ বাজেটের প্রাথমিক দুর্বলতা হচ্ছে, বিভিন্ন ভুক্তভোগী জনগণের স্বার্থ বিবেচনার লক্ষ্যে বিভিন্ন মহলের সঙ্গে অর্থপূর্ণ আলোচনা না করে এ বাজেট প্রস্তাব করা হয়েছে। ঢালাওভাবে ১৫ শতাংশ ভ্যাট আদায়ের বিরুদ্ধে প্রায় সব মহল থেকে আপত্তি উঠেছে। বিচার বিভাগে বরাদ্দ সম্পর্কে বলা হয়, বাজেটে বিচার বিভাগের প্রতি বিমাতাসুলভ আচরণের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। গত অর্থবছরের বাজেটে যেখানে বিচার বিভাগের খাতে বরাদ্দ ছিল ১ হাজার ৫৯১ কোটি টাকা, সেখানে চলতি অর্থবছরে প্রস্তাবিত বরাদ্দ কমিয়ে ১ হাজার ৫৮৫ কোটি টাকা করা হয়েছে। বিচার বিভাগের মতো শিক্ষা খাতেও বরাদ্দ কমিয়ে ৪৮ হাজার ৯০৬ কোটি টাকা থেকে ৪৫ হাজার ১৬৩ কোটি টাকা করা হয়েছে।

এ বাজেট টেকসই উন্নয়নের স্বার্থে কতিপয় চ্যালেঞ্জ সম্পর্কে স্পষ্ট দিকনির্দেশনা দিতে ব্যর্থ হয়েছে বলে অভিযোগ তোলা হয় সংবাদ সম্মেলনে। পরে দলটির পক্ষ থেকে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দুর্নীতি, সহিংসতা, অবৈধ অর্থ ও অস্ত্রমুক্ত রাজনীতি গড়ে তোলার জন্য জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

"