প্রথম কলাম

বব ডিলানের নোবেল বক্তৃতা চুরি করা?

প্রকাশ : ১৬ জুন ২০১৭, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

নোবেল কমিটি তার নাম যখন ঘোষণা করল সাহিত্যে নোবেল বিজয়ী হিসেবে, তখন থেকে বিতর্ক তার পিছু ছাড়ছে না। এই পুরস্কারের খবরে অনুরাগীরা যেমন আহ্লাদে আটখানা হয়েছিলেন, তেমনি সমালোচকরা প্রশ্ন তুলেছিলেন, এক পপ গায়ক কিভাবে সাহিত্যে সর্বোচ্চ সম্মান পেতে পারেন। আর এবার বব ডিলানের বিরুদ্ধে অভিযোগ-একটি ওয়েবসাইট থেকে তিনি তার নোবেল-বক্তৃতার বিভিন্ন অংশ চুরি করেছেন।

গত ডিসেম্বরে যখন নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়, তখন সেই অনুষ্ঠানে ছিলেন না ডিলান। কিন্তু নিয়ম হচ্ছে, নোবেল-বক্তৃতা না পাঠালে প্রাপকের হাতে পুরস্কার মূল্য তুলে দেওয়া যাবে না। আর তাই এ মাসের গোড়ায় নোবেল কমিটিকে তার ২৬ মিনিটের বক্তৃতার ভিডিও রেকর্ডিং পাঠান ডিলান। যেটিকে ‘অসাধারণ’ ও ‘ঝরঝরে ভাষায় লেখা’ বলে সে সময় মন্তব্য করেছিল নোবেল কমিটি।

বক্তৃতায় ডিলান বলেছিলেন, ‘মবি ডিক’, ‘দ্য অডিসি’ এবং ‘অল কোয়ায়েট অন দ্য ওয়েস্টার্ন ফ্রন্ট’-এই তিনটি বই তার জীবনকে নানাভাবে প্রভাবিত করেছে। গোল বেঁধেছে সেখানেই। ডিলান বইগুলো থেকে যে উদ্ধৃতি ব্যবহার করেছিলেন, এক লেখকের দাবি- সেগুলো আদতেই বই থেকে নেওয়া উদ্ধৃতি নয়, বইগুলোর সারাংশ মাত্র। এবং তা-ও আবার ডিলানের নিজের ভাষায় লেখা সারাংশ নয়, ‘স্পার্কনোটস’ নামের এক ওয়েবসাইট থেকে নেওয়া।

বেন গ্রিনম্যান নামের এই মার্কিন লেখকের দাবি সমর্থন করেছেন আর এক সাংবাদিক-লেখক অ্যান্ড্রিয়া পিৎজার। তিনি আবার তার ব্লগে ডিলানের বক্তৃতা ও ‘স্পার্কনোটস’ থেকে বিভিন্ন লাইন পাশাপাশি তুলে এনে দেখিয়েছেন, কীভাবে ওয়েবসাইটের লেখা মাত্র দু-একটা শব্দ বদল করে নিজের বক্তৃতায় ব্যবহার করেছেন নোবেলজয়ী গীতিকার। এ প্রসঙ্গে ডিলানের মুখপাত্র ও নোবেল কমিটিকে জিজ্ঞাসা করা হলে, কেউই কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

এর আগেও ডিলানের বিরুদ্ধে একাধিকবার অভিযোগ উঠেছিল, তিনি অন্য গান থেকে ভাব ও ভাষা নেন। তবে তার অনুরাগীরা বারবার বলে এসেছেন, লোকসংগীতের ঘরানায়, ‘নিজস্ব’ বলে কিছু হয় না। শিল্পী সে-টুকু স্বাধীনতা নিতেই পারেন। সূত্র : নিউইয়র্ক টাইমস, আনন্দবাজার পত্রিকা

"