সেই যানজটেই ফিরল ঢাকা

প্রকাশ : ০২ জুন ২০২০, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজাধানীতে চলছে গণপরিবহন। ফুটপাতেও মানুষের ভিড়। ফলে ধীরে ধীরে তিলোত্তমা ঢাকা ফিরল যানজটের নগরেই। গতকাল সোমবার ৬৬ দিনের সাধারণ ছুটি শেষে অফিস আদালত খোলার দ্বিতীয় দিন। একইসঙ্গে চালু হয়েছে গণপরিবহন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় গত ২৬ মার্চ থেকে জরুরি সেবা বাদে সবকিছু বন্ধ ছিল। এরপর ৩১ মে থেকে সীমিত আকারে অফিস আদালত খুলে দেওয়া হয়। গতকাল শুরু হয় গণপরিবহন চলাচল।

সকাল থেকেই স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চালু হয় গণপরিবহন। দুপুরে রাজধানীর ব্যস্ততম এলাকা মতিঝিলে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে সাধারণ ছুটির আগের মতোই ভিড়। ফুটপাতে লোকজনকে গায়ে গা লাগিয়ে হাঁটতে দেখা গেছে। বিশেষ করে শাপলা চত্বর থেকে সিটি সেন্টার পর্যন্ত রাস্তার কাজ চলায় অনেক ক্ষেত্রে শারীরিক দূরত্বও মেনে চলা সম্ভব হয়নি।

একই দৃশ্য ছিল রাজধানী আরেক ব্যস্ততম সড়ক পল্টন মোড়েও। সেখানে কথা হচ্ছিল ফকিরাপুলের বাসিন্দা আহমেদুর রশীদ সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘অফিস-আদালত খুলে গেছে। ঝুঁকি নিয়েই ঘর থেকে বের হতে হয়েছি। ঘরে বসে থাকা সম্ভব না।’

এদিকে রাস্তায় সবাই নিজস্ব সুরক্ষাসামগ্রী ব্যবহার করেছেন। বিশেষ করে মাস্ক পরা ছাড়া মানুষ পাওয়া যায়নি বললেই চলে।

সন্তোষজনক দৃশ্য ছিল রাজধানীর গণপরিবহনগুলোতে। ট্রান্সসিলভা পরিবহনে সাইন্সল্যাব থেকে জাতীয় প্রেস ক্লাব পর্যন্ত আসতে এ প্রতিবেদক দেখেন, তিনি ছাড়া আর মাত্র একজন যাত্রী ছিলেন। বাসের আসনগুলো ঢাকা ছিল পলিথিনে।

বাসটির হেল্পার বিল্লাল বলেন, বাসের সিটের ওপর পাতলা পলিথিনের কাভার দেওয়া হয়েছে যা প্রতিদিন খুলে ফেলা হবে।

তিনি বলেন, মতিঝিল থেকে ধানমন্ডি রুটে ৪০টি এবং গাজীপুর রুটে ৩০টি বাস চলাচল করছে। এর আগে প্রতিদিন দুই রুটেই ৭০টি করে বাস চলাচল করত।

গণপরিবহন চালু হওয়ার প্রথম দিনে পরিবহনগুলোর সুরক্ষা ব্যবস্থায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন যাত্রীরা। তবে সামনের দিনগুলোতে এ সুরক্ষা ব্যবস্থা থাকবে কিনা সেটি নিয়ে সংশয়ও ছিল তাদের মধ্যে।

 

"