করোনা চিকিৎসায় অতীব গুরুত্বপূর্ণ ভেন্টিলেটর

প্রকাশ : ১৯ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনা রোগীদের বাঁচাতে ভেন্টিলেটরের পাশাপাশি প্রয়োজন তা চালানোর মতো দক্ষ জনবল, আইসিইউ সেটআপ ও সেন্ট্রাল অক্সিজেন।

দুঃখজনক হলেও সত্য গত কিছু দিনে দেশে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। প্রতিদিন মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। টেস্ট যত বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও তত বাড়ছে। এর মধ্যে পরিসংখ্যানগত তথ্য-উপাত্ত ঘাটলে দেখা যায় সুস্থ হওয়ার সংখ্যাও কম।

গত কিছু দিনে সবচেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে এই রোগীদের আইসিইউ সুবিধা নিয়ে তথা ভেন্টিলেটরের সংখ্যা নিয়ে। বলা হচ্ছে, এখন পর্যন্ত আমাদের সবমিলিয়ে কমবেশি ৫০০ ভেন্টিলেটর আছে যা দিয়ে রোগীদের কৃত্রিম শ্বাস-প্রশ্বাস চালু রাখা সম্ভব। কিন্তু সমস্যা হলো এই ভেন্টিলেটরগুলোর সিংহভাগই আছে ঢাকায়। পেরিফেরিতে তা একেবারেই অপ্রতুল। যদিও সংখ্যা বৃদ্ধির চেষ্টা চলছে।

ভেন্টিলেটর বসালেই তো হবে না প্রয়োজন তা চালানোর মতো দক্ষ জনবল, আইসিইউ সেটআপ, সেন্ট্রাল অক্সিজেন। দুঃখজনক সত্য হলো করোনাভাইরাস রোগীদের চিকিৎসার জন্য নির্ধারিত বেশিরভাগ হাসপাতালই হলো সদর হাসপাতাল, যেগুলোতে এর কোনোটিই নেই! আর রাতারাতি এর পরিবর্তনও অসম্ভব।

সিলেটে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য নির্ধারিত হাসপাতাল হলো শহীদ শামসুদ্দিন সদর হাসপাতাল। গত কয়েক দিন আগেও ওই হাসপাতালে ঝড়বৃষ্টির সময় বিদ্যুত চলে যাওয়ার পর চিকিৎসককে রোগী দেখতে হয়েছে মোবাইলের আলোয় আর মোম জ্বেলে! কাজেই ভেন্টিলেটর চালানো সেখানে বেশ সমস্যাপূর্ণ।

ট্রাম্পের মিরাকল ড্রাগ ম্যালেরিয়ার ওষুধ থেকে শুরু করে, এন্টিভাইরাল, মলিকুলার লেভেলে টার্গেটে কাজ করা ওষুধ, নতুন ড্রাগ, যক্ষ্মার ভেকসিন, নতুন ভেকসিন, কী নিয়ে গবেষণা হচ্ছে না! ফল, এখন পর্যন্ত খুব সুখকর নয়।

 

"