অস্ট্রেলিয়ায় সংবাদমাধ্যমের জন্য প্রণোদনা

প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনাভাইরাস মহামারিতে সংকটে পড়া আঞ্চলিক সংবাদমাধ্যমগুলোর জন্য ৫ কোটি ডলারের প্রণোদনা ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়ার সরকার। জনস্বার্থে সাংবাদিকতা ধরে রাখতে দেশটির আঞ্চলিক ও দূরবর্তী এলাকার রেডিও, সংবাদপত্র ও টেলিভিশনগুলো এই প্রণোদনা পাবে। সরকারি এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন শিল্প সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা। তবে দীর্ঘমেয়াদে এই প্রণোদনা যথেষ্ট হবে না বলে মনে করছেন তারা। বুধবার অস্ট্রেলীয় সংবাদমাধ্যম এবিসি নিউজ এ খবর জানিয়েছে।

করোনা মহামারিতে বিজ্ঞাপন সংকটের কারণে গত মঙ্গলবার দৈনিক নয় এমন প্রকাশনা বন্ধের সিদ্ধান্ত জানায় অস্ট্রেলিয়ান কমিউনিটি মিডিয়া (এসিএম)। অন্তত আগামী জুন পর্যন্ত এই সিদ্ধান্ত কার্যকর থাকবে বলে জানানো হয়। অ্যাভন ভ্যালি অ্যাডভোকেট, বানবুরি মেইল, কোলি মেইল এবং এসপারেন্স এক্সপ্রেসের মতো পত্রিকা বন্ধ থাকবে বলে এক টেলিকনফারেন্সে সাংবাদিকদের জানায় এসিএম।

এসিএমের অধীনে দৈনিক নয় এমন আঞ্চলিক প্রকাশনা রয়েছে ১২৫টি। তবে এর মধ্যে কতটির প্রকাশনা বন্ধ থাকবে বা কত সাংবাদিক আক্রান্ত হবেন তা স্পষ্ট নয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সাংবাদিক এবিসি নিউজকে জানিয়েছেন, তারা সংবাদমাধ্যম থেকে এ খবর পেয়েছেন। এসিএমের ঘোষণার পরদিনই প্রণোদনার ঘোষণা দেয় অস্ট্রেলিয়ার কেন্দ্রীয় সরকার।

ওয়েলসের কার্টিন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতার বিশেষজ্ঞ ক্যাথরিন শাইন মনে করেন, কেন্দ্রীয় সরকারকে প্রণোদনা ঘোষণা করতে দেখা ইতিবাচক। তবে আরো বেশি সহায়তা ও আলোচনা প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি। বলেন, ‘এই তহবিল কীভাবে ব্যবহার হবে, যথেষ্ট কিনা এবং কীভাবে এগুলো আঞ্চলিক পত্রিকাগুলো পাবে তাও স্পষ্ট নয়। সে কারণে আঞ্চলিক সংবাদমাধ্যমগুলোর সঙ্গে আরো ভালোভাবে আলোচনার প্রয়োজন। এ ধরনের ওপর থেকে চাপিয়ে দেওয়া প্রণোদনার চেয়ে তাদের কী প্রয়োজন সেটা নিয়ে আলোচনার দরকার।’ ক্যাথরিন বলেন, ‘শুরু থেকেই আর্থিকভাবে তারা ভালো অবস্থায় ছিল না আর এখন করোনাভাইরাস জনিত মন্দার কারণে খাদের কিনারায় পৌঁছে গেছে।’

অস্ট্রেলিয়ার ঘোষিত প্রণোদনার মধ্যে ১ কোটি ৩৪ লাখ ডলার নতুন বরাদ্দ দেওয়া হবে। আর বাকি অর্থ প্রচলিত কর্মসূচিতে অবরাদ্দকৃত অর্থ থেকে দেওয়া হবে। জনস্বার্থে সংবাদ সংগ্রহ কর্মসূচি ছাড়াও কর অব্যাহতি ও স্বল্পমেয়াদি বরাদ্দও প্রণোদনার আওতায় থাকবে বলে জানান অস্ট্রেলিয়ার কমিউনিকেশন মন্ত্রী পল ফ্লেচার। তিনি বলেন, আমরা সংবাদমাধ্যম খাতে স্বল্পমেয়াদি সহায়তার প্রস্তাব দিচ্ছি। তিনি বলেন, ‘সরকার মনে করে স্থানীয় সম্প্রদায়কে অবহিত করতে এবং শক্তিশালী করতে জনস্বার্থে সাংবাদিকতা জরুরি প্রয়োজন।’

 

"