এক কবরেই ৬০০ ঘোড়ার কঙ্কাল!

প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

অবিশ্বাস্য বটে! শত শত ঘোড়ার সমাধি, তাও আবার একই স্থানে। ১৯৬৪ সালে চীনে একটি আশ্চর্যজনক সমাধি আবিষ্কার করেন প্রতœতাত্ত্বিকরা। সমাধিতে দেখা যায়, সারিবদ্ধভাবে সাজানো কয়েকশ’ ঘোড়ার কবর।

এটি দেখে ধারণা করা হয়, এ সমাধিটি ধনী বা সমাজের উচ্চ শ্রেণির কোনো ব্যক্তিদের হবে হয়তো! ঘোড়াগুলোকে বলি দেওয়া হয়েছিল বলে মত গবেষকদের। এছাড়াও আরো সমাধি থাকতে পারে ভেবে প্রতœতাত্ত্বিকরা আরো অনুসন্ধান চালাতে থাকে। এ সমাধিটির পাশেই ছিল রাজা ডিউক জিংয়ের সমাধি।

খ্রিস্টপূর্ব ৫৪৭ থেকে ৪৯০ পর্যন্ত রাজা ডিউক জিং চীনের কিউ রাজ্য শাসন করেন। তার বাবা ডিউক লিং ছিলেন কিউয়ের রাজা। ডিউক জিংয়ের মা ছিলেন ডিউক লিংয়ের একজন উপপতœী। ডিউক জিংয়ের জন্মের সময় নাম দেওয়া হয়েছিল ল চুজিউ এবং জিয়াং ছিল তার পৈতৃক নাম। ডিউক জুয়াং নামে ডিউক জিংয়ের এক বড় ভাই ছিল। খ্রিস্টপূর্ব ৫৫৪ তাদের বাবা ডিউক লিং মারা যাওয়ার পর ডিউক জুয়াং রাজা হন।

তবে তিনি বেশিদিন ক্ষমতায় থাকতে পারেননি। খ্রিস্টপূর্ব ৫৪৮ সালে ডিউক জুয়াং তার মন্ত্রী কুই ঝুর হাতে প্রাণ হারান। সে সময় মন্ত্রী কুই ঝুর সঙ্গে ডিউক জুয়াংয়ের স্ত্রীর অবৈধ সম্পর্ক ছিল। আর তা জেনে ফেলায় কুই ঝু ডিউক জুয়াংকে হত্যা করেন। ডিউক জুয়াংয়ের মৃত্যুর পর কিউ রাজ্য পরিচালনার দায়িত্ব পান ডিউক জিং। এ সময়ও রাজ্যের মন্ত্রী হিসেবেই ছিল কুই ঝু। আর রাজ্যের সহ-প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ছিলেন কিং ফেং। কুই ঝু এবং কিং ফেংয়ের মধ্যে অশান্তির কারণে কিউই রাজ্যে নানা সমস্যা লেগেই থাকত। এরপর ডিউক জিং ইয়ান ইংকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিলে কিউ রাজ্যে শান্তি ও সমৃদ্ধি ফিরে আসে।

ডিউক জিংয়ের বিয়ে হয় ইয়ান রাজ্যের রাজকুমারী ইয়ান জিয়ার সঙ্গে। তাদের ছেলে কিউইর রাজপুত্রের মুকুট পান। তবে ডিউক জিংয়ের রাজত্বকালেই তার প্রথম ছেলে মারা যান। এরপর ডিউক জিংয়ের আরো পাঁচটি ছেলে সন্তান হয়। এদের মধ্যে বড় ছেলে যুবরাজ তু পরবর্তী রাজার মুকুট পান। ডিউকের বাকি ছেলেদের প্রত্যন্ত শহর লাইয়ে নির্বাসিত করা হয়েছিল। খ্রিস্টপূর্ব ৪৯০ সালে ডিউক জিং মারা যান। এরপর যুবরাজ তু সিংহাসনে বসেন। তবে বেশ কয়েকটি গোষ্ঠী যুবরাজ তু কে রাজা হিসেবে মেনে নিতে পারেননি। তাই তারা ডিউক জিংয়ের আরেক ছেলে যুবরাজ ইয়াং শেংকে সিংহাসনে বসানোর জন্য কিউতে ফিরিয়ে আনে। এরপর যুবরাজ ইয়াং শেং রাজা তু কে হত্যা করেন এবং সিংহাসনে বসেন।

কিউইয়ের ডিউক জিংকে শানডং প্রদেশের জিবোর লিনজি জেলার ইয়াতৌতে সমাহিত করা হয়েছিল। সমাধির উত্তর দিকে প্রতœতাত্ত্বিকরা ২১৫ মিটার দীর্ঘ একটি গর্ত খুঁজে পান। সেখানে সমাধির তিন দিকের চারপাশে ১৪৫টি ঘোড়ার দেহাবশেষ পান। যেগুলোকে বলি দিয়ে সমাধি করা হয়েছিল বলে ধারণা করা হয়। বেশ কয়েক বছর পরে, অন্য একটি সমাধিতে আরো ১০৬টি ঘোড়ার কঙ্কাল পায়। এবার ঘোড়ার সংখ্যা দাঁড়ায় ২৫১ তে। ধারণা করা হয়, ঘোড়াগুলোর বয়স পাঁচ থেকে সাত বছরের মধ্যে ছিল।

গবেষকদের ধারণা, মদ্য পান করিয়ে ঘোড়াগুলোকে প্রথমে অজ্ঞান করা হয়। এরপর মাথায় আঘাত করে মারা হয়। অতঃপর সবগুলোকে একসঙ্গে সমাধিতে মাটি চাপা দেওয়া হয়েছিল। অনিবার্য কারণে ২০০৩ সালে খনন কিছুদিন বন্ধ ছিল। তবে প্রতœতাত্ত্বিকরা অনুমান করেছিলেন, ডিউক জিংয়ের সম্মানে এ ঘোড়াগুলোর পাশাপাশি আরো ৩০টি কুকুর, দুটি শূকর এবং ছয়টি গৃহপালিত প্রাণীসহ আরো ৬০০টি ঘোড়া সমাহিত করা হয়েছিল। যদিও চীনে আবিষ্কার হওয়া ঘোড়ার ধ্বংসাবশেষগুলোর মধ্যে এটি এখন পর্যন্ত বৃহত্তম।

নতুন খনন : ১৬ বছরের বিরতির পর সম্প্রতি আবারো খনন কাজ শুরু হয়েছে। হয়তো অবশেষে বিশেষজ্ঞরা সেখানে কবর দেওয়া ঘোড়ার সংখ্যা নিশ্চিত করতে সক্ষম হবেন। সিনহুয়া নিউজ এজেন্সি প্রকাশ করেছে, প্রাথমিক খননকালে ৩ হাজারেরও বেশি সাংস্কৃতিক ধ্বংসাবশেষ আবিষ্কার করা হয়েছিল। এবারো নতুন কিছু সামনে আসবে বলে ধারণা তাদের।

 

"