ভেলায় আটলান্টিক পাড়ি বানরের!

প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

জীবন বাঁচাতে এক দেশ থেকে আরেক দেশে পাড়ি দেয় বানর। তাও আবার ভেলায় চড়ে। সহস্র মাইল জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দীর্ঘপথ পাড়ি দেয় তারা। বলছি, কোটি বছর আগের একদল বানরের কথা। প্রাচীন প্রজাতির এই বানরের দল আফ্রিকা থেকে আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দিয়ে দক্ষিণ আমেরিকার পেরুর অ্যামাজন গভীর জঙ্গলে গিয়ে পৌঁছায়। গবেষকরা প্রাগৈতিহাসিক যুগের এই বানরের নাম দিয়েছেন উকায়ালি পিথেকাস পারডিটা।

উকায়ালি শব্দটি এসেছে স্থানের নাম থেকে। পেরুর আমাজন জঙ্গলের যে স্থান থেকে দাঁতগুলো পাওয়া গেছে সে জায়গাটির নাম উকায়ালি। পিথিকোস গ্রিক শব্দ যার অর্থ বানর এবং পারডিটা লাতিন শব্দ যার অর্থ বিলুপ্ত বা হারিয়ে যাওয়া। বর্তমানে আফ্রিকান এই বানরের প্রজাতির একদমই বিলুপ্ত হয়ে গেছে। প্রতœতত্ত্ববিদরা পেরুর আমাজনের গভীর জঙ্গলে চারটি জীবাশ্ম বানরের দাঁত আবিষ্কার করেন। আবিষ্কৃত জীবাশ্ম বানরের দাঁতগুলো থেকে জানা যায়, কয়েক কোটি বছর আগে তারা সমুদ্র পাড়ি দিয়ে আমাজনে গিয়ে পৌঁছেছিল।

সম্প্রতি সাউথ ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সায়েন্স জার্নালে প্রকাশিত গবেষণায় এমন তথ্যই ওঠে এসেছে। পেরুর যে অঞ্চল থেকে জীবাশ্ম বানরের দাঁতগুলোর সন্ধান মিলেছে ওই অঞ্চলেই আগে পাওয়া গিয়েছিল আরেক প্রজাতির বানর। তারা মূলত দক্ষিণ আমেরিকার প্রাচীন প্রাজাতির বানর।

ধারণা করা হয়, বানরগুলো ৯০০ মাইলেরও বেশি সমুদ্র পথ পাড়ি দিয়েছিল ভেলায় চড়ে। সাউথ ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাক স্কুল অব মেডিসিন ক্লিনিকেল ইন্টিগ্রেটিভ অ্যানাটমিক্যাল সায়েন্সের অধ্যাপক ড. এরিক সেইফার্ট বলেন, প্রাগৈতিহাসিক যুগের জীবাশ্ম বানরের দাঁত আবিষ্কারের বিষয়টি সত্যিই অনন্য এক ঘটনা। শুধু বানর নয় ছোট ইঁদুর ও স্তন্যপায়ী প্রাণীদেরও সমুদ্র পাড়ি দেয়ার ঘটনা ঘটেছে যুগে যুগে। এরাও দীর্ঘ সমুদ্রপথ পাড়ি দেওয়ার মতো অসম্ভব কাজ সাধন করে আফ্রিকা থেকে দক্ষিণ আমেরিকায় পৌঁছেছিল।

গবেষকদের ধারণা, এই উকায়ালি পিথেকাস বানর আকারে বেশ ছোট, যা অনেকটা বর্তমান সময়ের মারমোসেট প্রজাতির বানরের মতো। গবেষকরা পেরুর আমাজনে ইউরুয়া নদীর তীরে খননের সময় একটি গুহায় থেকে দাঁতগুলো আবিষ্কার করেন। তাদের বিশ্বাস, পেরুর উকায়ালির যে স্থান থেকে দাঁতগুলো পাওয়া যায় তা অলিগোসিন নামে পরিচিত ভূতাত্ত্বিক যুগের অংশ। এই যুগের বিস্তৃতি ছিল প্রায় ২৩ থেকে ৩৪ মিলিয়ন বছর আগে।

অন্যদিকে দাঁতগুলো প্যারাপিথিসাইডি নামে আফ্রিকার বিলুপ্ত প্রজাতির একটি প্রাইমেটের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ; যা প্রায় ২৩ থেকে ৫৬ মিলিয়ন বছর আগে মিসরে বর্তমান ছিল। জীবাশ্ম প্রাপ্তির স্থানের বয়স এবং আনুষঙ্গিক বিষয় বিশ্লেষণ করে গবেষকরা বলছেন, আনুমানিক ৩৪ মিলিয়ন বছর আর্গে প্রাগৈতিহাসিক যুগের এই বানরগুলো আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দিয়েছিল।

গবেষক দলের প্রধান সেইফার্ট বলেন, বানরগুলো যখন দক্ষিণ আমেরিকায় পৌঁছায় তখন ইওসিন এবং অলিগোসিন ভূতাত্ত্বিক যুগের মধ্যবর্তী সময়। সে সময় অ্যান্টার্কটিকায় বরফের আস্তরণ জমা শুরু হয় এবং সমুদ্র স্তর নিচে নামা শুরু হয়েছিল। সুতরাং এই সময় স্বাভাবিকভাবেই আটলান্টিক মহাসাগরের বিস্তৃতি কমে এসেছিল। আর এ কারণেই বানরদের পক্ষে সমুদ্র পাড়ি দেওয়া সহজ হয়েছিল।

প্রথমদিকে সেইফার্ট এবং তার দলের কাছে একটা বড় ধাঁধা ছিল, কীভাবে কোটি কোটি বছর আগে বানরের দল ভেলায় চড়ে সমুদ্র পার হয়েছিল। পরে তারা আবিষ্কার করেন, সাগরে প্রাকৃতিকভাবে সৃষ্ট বৃহৎ ভেলায় ভেসেই তারা সমুদ্র পাড়ি দেয়। প্রায় সাড়ে ৩ কোটি বছর আগে ছোট্ট বানরের দল সহস্র মাইল পাড়ি দিয়ে এক মহাদেশ থেকে অন্য মহাদেশে পৌঁছেছিল।

 

"