পশ্চিমবঙ্গে আবার বাংলাদেশের জাহাজডুবি

প্রকাশ : ১১ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০

কলকাতা প্রতিনিধি

নদীর মাঝখানে বিদ্যুতের টাওয়ারে ধাক্কা মেরে ডুবে গেল বাংলাদেশি জাহাজ। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টা নাগাদ দক্ষিণ ২৪ পরগনার সাগর থানা এলাকার মুড়িগঙ্গা নদীতে। জানা যায়, বাংলাদেশি জাহাজ এমভি ধ্রুব রূপন্তী নামখানা যাচ্ছিল সেই সময় হঠাৎ কচুবেরিয়া ঘাটের কাছাকাছি মুড়িগঙ্গা নদীর মধ্যে ইলেকট্র্রিক টাওয়ারে ধাক্কা লাগে। পরে সাগর থানার কচুবেরিয়া ঘাটে কর্তব্যরত পুলিশের কর্মীরা ঘটনার খবর পেয়ে সাগর থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক বাপি রায়কে জানিয়ে একটি ট্রলার নিয়ে ডুবন্ত জাহাজের কাছে পৌঁছায় এবং নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে একে একে ১০ জন নাবিক কে ডুবন্ত জাহাজ থেকে উদ্ধার করা হয়। এরপরেই জাহাজটি আস্তে আস্তে নদীবক্ষে ডুবে যায়। উদ্ধার হওয়া নাবিক দলকে কচুবেরিয়া থেকে সাগর হাসপাতালে চিকিৎসা করানোর পর গঙ্গাসাগরে কোয়াররেন্টাইন সেন্টারে রাখা হয়েছে বলে জানানো হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। ঘটনায় তদারকি করতে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান সাগরের বিধায়ক বঙ্কিম হাজরাসহ প্রশাসনিক কর্তারা।

অন্যদিকে এমভি তোফাদারি-৪ বাংলাদেশি জাহাজটি বুধবার রাতে বজবজ থেকে ফ্লাইঅ্যাশ বোঝাই করে বাংলাদেশে ফিরছিল। জাহাজটি রাতে সাগরের ঘোড়ামারা দ্বীপের কাছে নোঙর করে। হুগলি নদীতে তখন জোয়ার ছিল। জোয়ারের জলের তোড়ে পাশে থাকা অন্য একটি জাহাজের সঙ্গে হঠাৎই ধাক্কা লাগে এর। সেই ধাক্কায় বাংলাদেশি জাহাজটির ইঞ্জিন রুমের তলা ফুটা হয়ে জল ঢুকতে শুরু করে। সঙ্গে সঙ্গে জাহাজে থাকা আটজনের সাতজনই নদীতে ঝাঁপিয়ে সাঁতরে পাশের জাহাজটিতে উঠে পড়েন। বাকি একজন নাবিক জাহাজটিতেই রয়ে যান।

পরে বৃহস্পতিবার সকাল হতে না হতেই ট্যাংরার চরের কাছে ওই ফ্লাইঅ্যাশ ভর্তি জাহাজটি পুরোপুরি হুগলি নদীতে ডুবে যায়। উদ্ধার হওয়া আট বাংলাদেশিকে এ দিন সকালে কুলপি থানার পুলিশ প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসে।

 

"