ড. ওয়াজেদ মিয়ার জন্মবার্ষিকী পালিত

প্রকাশ : ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে উপমহাদেশের খ্যাতনামা পরমাণু বিজ্ঞানী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বামী প্রয়াত ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার ৭৮তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে। গতকাল রোববার প্রয়াত বিজ্ঞানীর গ্রামের বাড়ি পীরগঞ্জের ফতেহপুরে মরহুমের কবরে পুষ্পার্ঘ অর্পণ, কবর জিয়ারত, মোনাজাত করেন রংপুর জেলা প্রশাসন ও বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন, প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা। সেখানে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল, আলোচনা সভা, গরিবদের মধ্যে খাবার বিতরণসহ নানা কর্মসূচি পালন করা হয়। রংপুর, পীরগঞ্জ ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধির পাঠানো রিপোর্টে এসব খবর জানা গেছে।

জানা গেছে, বাদ জোহর ফতেহপুরের জয়সদনে দোয়া, মিলাদ ও আলোচনা সভা হয়। এতে ড. এমএ ওয়াজেদ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও বিজ্ঞানীর বড় ভাতিজা ছায়াদত হোসেন বকুল সভাপতিত্ব করেন। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র তাজিমুল ইসলাম শামিমের সঞ্চালনায় অধ্যাপক নুরুল আমিন রাজা, চতরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এনামুল হক শাহিন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান রনি বক্তব্য দেন।

সকালে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর পক্ষে ছায়াদত হোসেন বকুল, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিম উল্লাহ, জেলা প্রশাসক আসিব আহসান, পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি প্রাপ্ত কর্মরত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু মারুফ হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টি এম এ মমিনসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সব সহযোগী সংগঠনের নেতারা, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. ওয়াজেদ রির্সাস অ্যান্ড ট্রেনিং ইনস্টিটিউট, রংপুরের ড. এমএ ওয়াজেদ স্মৃতি সংসদ, পীরগঞ্জের ড. এমএ ওয়াজেদ ফাউন্ডেশন, ড. এমএ ওয়াজেদ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, খালাশপীর বঙ্গবন্ধু কলেজ, সরকারি শাহ আবদুর রউফ কলেজ, নবগঠিত পীরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র, কাউন্সিলর, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মহাজোটের শরীক, সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠন মরহুমের কবরে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করে ফাতেহা পাঠ ও মোনাজাত করেন।

এদিকে ওয়াজেদ মিয়ার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বাদ জোহর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে এবং উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদে মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। তার প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেছে জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়াজেদ মিয়া বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্রের সামনে তার ম্যুরালে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন। এ সময় বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ ও ওয়াজেদ মিয়া বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্রের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়।

বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবনের অধিকারী ওই বিজ্ঞানী ১৯৪২ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি লালদীঘির ফতেহপুরে সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। বঙ্গবন্ধুর জামাতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বামী ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যান ছিলেন। পিতা মরহুম আবদুল কাদের মিয়া ও মাতা মরহুমা ময়জুনেসার চার ছেলে ও তিন মেয়ের মধ্যে তিনি ছিলেন সর্ব কনিষ্ঠ। ২০০৯ সালের ৯ মে ৬৭ বছর বয়সে তিনি ইন্তেকাল করেন। শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী পীরগঞ্জ উপজেলার ফতেহপুর গ্রামে তার বাবা-মায়ের কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়।

 

"