বগুড়া-১ আসনের উপনির্বাচন

মনোনয়নপ্রত্যাশীদের জোর তৎপরতা

প্রকাশ : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০

বগুড়া প্রতিনিধি

বগুড়া-১ আসনের আসন্ন উপনির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে জোর তৎপরতা শুরু হয়েছে। মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নিজেদের সমর্থনে সভা-সমাবেশ, পারিবারিক-সামাজিক অনুষ্ঠানে বক্তব্য উপস্থাপন করছেন। আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনের তপশিল ঘোষণা না হলেও সারিয়াকান্দি-সোনাতলার সর্বত্রই চলছে এ সংক্রান্ত আলোচনা। কে হবেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী, বিএনপির প্রার্থীই বা কে হবেন, জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী কে হবেন, অন্য দলের আর কোনো প্রার্থী আছেন কিনাÑ এমন আলোচনায় এখন সরব এলাকাবাসী। এরই মধ্যে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন উত্তোলন করেছেন সাহাদারা মান্নানসহ ছয়জন।

গত ১৮ জানুয়ারি তিনবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য (আওয়ামী লীগ মনোনীত) আবদুল মান্নানের মৃত্যুতে বগুড়ার এ আসনটি শূন্য হয়। তার মৃত্যুর অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই শুরু হয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তৎপরতা। এ নির্বাচনকে সামনে রেখে শুরু হয়েছে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ব্যাপক পদচারণা। বগুড়ার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এ আসনে কে হবেন আওয়ামী লীগ অথবা বিএনপির প্রার্থী তা নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ।

জেলার সারিয়াকান্দি-সোনাতলা উপজেলা নিয়ে গঠিত বগুড়া-১ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশা করেছেন প্রয়াত সংসদ সদস্য আবদুল মান্নানের স্ত্রী সাহাদারা মান্নান শিল্পী অথবা তার একমাত্র ছেলে সাখাওয়াত হোসেন সজল। দুই উপজেলার আওয়ামী লীগের একটি বিরাট অংশ তাদের যে কোনো একজনের মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন। সারিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বগুড়া জেলা পরিষদ সদস্য সাহাদারা মান্নান শিল্পীর প্রয়াত সংসদ সদস্য আবদুল মান্নানের সহধর্মিণী হিসেবে জনমানুষের সঙ্গে মেশার অভিজ্ঞতা রয়েছে। আমেরিকায় লেখাপড়া শেষ করা আবদুল মান্নানের একমাত্র ছেলে সাখাওয়াত হোসেন সজল বাংলাদেশে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন। আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন চেয়ে এরই মধ্যে দলীয় মনোনয়ন উত্তোলন করেছেন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও ডাকসুর সাবেক সদস্য ম আবদুর রাজ্জাক। সাবেক এই মেধাবী ছাত্রনেতা দীর্ঘদিন ধরেই এলাকার মানুষের সঙ্গে বিভিন্ন কর্মকান্ডে অংশ নিয়েছেন। সুখে দুঃখে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তিনি এরই মধ্যে সোনাতলা ও সারিয়াকান্দি উপজেলার সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন। প্রয়াত সংসদ সদস্য আবদুল মান্নানের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করাসহ উন্নয়ন এগিয়ে নিতেই তিনি প্রার্থী হতে ইচ্ছুক।

এ আসনে আওয়ামী লীগের আরেক মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রয়াত সংসদ সদস্য আবদুল মান্নানের আপন বড় ভায়রা ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান। গুরুত্বপূর্ণ এ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশা করেছেন সারিয়াকান্দি পৌরসভার মেয়র, সারিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সরকারি আজিজুল হক কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আলমগীর শাহী সুমন। তিনি গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চেয়েছিলেন। পৌর মেয়র হিসেবে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করে তিনি এলাকাবাসীর আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছেন। এদিকে বগুড়া-১ আসন পুনরুদ্ধারে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে বিএনপি। এ আসনে বিএনপির শক্তিশালী প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কাজী রফিকুল ইসলাম। তিনি আব্দুল মান্নান সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার আগে এ আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন। গত নির্বাচনেও তিনি বিএনপির মনোনয়নে এ আসন থেকে নির্বাচন করেন। বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দৌড়ে এগিয়ে আছেন সোনাতলা উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি, জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ও বর্তমান আহবায়ক কমিটির সদস্য, সোনাতলা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এ কে এম আহসানুল তৈয়ব জাকির। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও তিনি এ আসন থেকে বিএনপির মনোনয়ন চেয়েছিলেন। বিএনপি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন জিয়া শিশু-কিশোর সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক, রিয়েল স্টেট ব্যবসায়ী মোশারফ হোসেন। তিনি এ লক্ষ্যে এলাকায় গণসংযোগ শুরু করেছেন এবং বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করছেন। বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী অন্যদের মধ্যে রয়েছেন সারিয়াকান্দি উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও সারিয়াকান্দি উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মাছুদুর রহমান হিরু মন্ডল ও ডা. শাহ শাহজাহান আলী।

এদিকে জাতীয় পার্টি থেকে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টির সদস্য ও সারিয়াকান্দি উপজেলা জাতীয় পার্টির সদস্য অধ্যক্ষ মোকছেদুল আলম। এছাড়া এনপিপি মহাসচিব আবদুল হাই মন্ডল দলীয় মনোনয়ন নিয়ে এ আসনে প্রার্থী হবেন বলে জানা গেছে। মনোনয়ন প্রত্যাশার মধ্যদিয়ে শুরু হওয়া নির্বাচনী আমেজে থাকা সোনাতলা-সারিয়াকান্দির সাধারণ মানুষ প্রত্যাশা করছেন দুর্নীতিবিরোধী সৎ মানসিকতার এমন কর্মবীর প্রার্থীদের যাদের মধ্য থেকে তারা বেছে নেবেন ভবিষ্যৎ সংসদ সদস্য।

 

"