জাপানকে গ্রামীণ বিনিয়োগের আহ্বান স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

প্রকাশ : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম দেশের গ্রামীণ অঞ্চলে ক্ষুদ্র শিল্প, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ও যোগাযোগ খাতে বেশি করে বিনিয়োগ করতে জাপানের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি গতকাল রোববার সচিবালয়ের স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের কনফারেন্স কক্ষে তিন সিটি করপোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনার গাড়ির চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আহ্বান জানান।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি), ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (সিসিসি) বর্জ্য অপসারণের জন্য জাপানের দাতা সংস্থা জাইকা এ গাড়িগুলো দান করে।

মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ‘জাপান শুধু অনুদান নয়, বিনিয়োগ করতেও এগিয়ে আসতে পারে। এতে জাপানও লাভবান হবে। কারণ গ্রামীণ এলাকার মানুষ খুবই পরিশ্রমী আর আমাদের জমিও খুবই উর্বর।’

মন্ত্রী আরো বলেন, ঢাকা শহরে দুই সিটি করপোরেশন এলাকা মিলিয়ে ২০১৪ সালে যেখানে প্রতিদিন ৫ হাজার ১০০ টন বর্জ্য উৎপাদিত হতো, সেখানে ২০১৯ সালে এসে প্রতিদিন ৬ হাজার টন বর্জ্য উৎপাদিত হচ্ছে। চট্টগ্রামে ২০১৪ সালে প্রতিদিন ১ হাজার ৬০০ টন বর্জ্য উৎপাদিত হতো; যা ২০১৯ সালে ২ হাজার টনে দাঁড়িয়েছে। বর্জ্যবাহী নতুন গাড়িগুলো পাওয়ায় ঢাকাতে ৬৫-৮০ শতাংশ এবং চট্টগ্রামে ৭৫-৮৫ শতাংশ বর্জ্য সংগ্রহের সক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে।

চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশের পরীক্ষিত বন্ধু জাপান সরকার ৭৭ কোটি টাকা মঞ্জুরি সহায়তার অধীনে তিন সিটি করপোরেশনকে ১৫০টি বর্জ্যবাহী গাড়ি দিয়েছে। এই গাড়িগুলোর জন্য তিন সিটি করপোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় সক্ষমতা আরো বাড়বে।

বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত নোয়াকি ইতো স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের কাছে গাড়ির চাবি হস্তান্তর করেন। পরে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী চাবিগুলো ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম এবং ঢাকা দক্ষিণ ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে হস্তান্তর করেন। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনকে ৫৬টি করে এবং চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনকে ৩৮টি গাড়ি দেওয়া হয়েছে।

জাপানের পক্ষ থেকে জানানো হয়, পরিবেশ রক্ষায় জাপান ২০০৩ সাল থেকে বাংলাদেশকে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে আসছে। গত ১০ বছরে তারা বর্জ্য পরিবহনের জন্য ১১২টি গাড়ি দিয়েছে।

স্থানীয় সরকার সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় জাইকার বাংলাদেশ অফিসের সিনিয়র রিপ্রেজেন্টেটিভ ইশোহিরা কাওয়াতিসহ জাপান দূতাবাস ও স্থানীয় সরকার বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

"