ঢাকা নগরীর বায়ুদূষণ কমাতে মহাপরিকল্পনা করা হয়েছে

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

প্রকাশ : ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকার বায়ুদূষণের ব্যাপারে সরকারি কোনো সংস্থা দায়িত্ব এড়াতে পারবে না। তবে ঢাকা শহরকে কীভাবে দৃষ্টিনন্দন করা যায়, আমরা তার মহাপরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। ওই পরিকল্পনায় বায়ু ও পরিবেশ দূষণ মোকাবিলার কথাও আছে। এই অপরিকল্পিত শহরকে দূষণমুক্ত করা কঠিন কাজ। তারপরও মহাপরিকল্পনা তৈরি করে সমন্বয় করে উন্নয়নকাজ করা হবে। তাহলে খোঁড়াখুঁড়ির যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাবে জনগণ। কমে আসবে বায়ুদূষণ। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। গতকাল বুধবার রাজধানীর আফতাবনগরে ঢাকা ওয়াসার নির্মাণাধীন দাশেরকান্দি স্যুয়ারেজ ট্রিটমেন্ট প্লান্ট পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

ওয়াসার পানিতে দুর্গন্ধÑ এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, এখন ঢাকা ওয়াসা ৯০ শতাংশ মানুষকে সুপেয় পানি দিচ্ছে। সম্প্রতি হাইকোর্টের একটি আদেশে ৩৪টি এলাকার পানি পরীক্ষার মাধ্যমে ২৮টি এলাকাতেই সুপেয় পানি পাওয়া গেছে। বাকি ছয়টি এলাকার পানি তুলনামূলক খারাপ। তবে এসব এলাকার পানি পান করলে তেমন ক্ষতি হবে না। এখন এই ছয় এলাকার পানির সমস্যা সমাধানে কাজ চলছে।

তিনি বলেন, রাজধানীর পয়োবর্জ্য সঠিক উপায়ে ধ্বংস করতে কাজ করছে সরকার। ইতোমধ্যে দাশেরকান্দি ও পাগলায় পয়োশোধনাগার প্রকল্পের কাজ চলছে। এ ছাড়া উত্তরা, মিরপুর ও রায়েরবাগ এলাকায় স্যুয়ারেজ ট্রিটমেন্ট প্লান্ট করার পরিকল্পনা রয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, এটা আমাদের সুপারভিশন প্রকল্প। এটা চালু হলে পয়োবর্জ্যগুলো শোধন করা হবে। শোধন শেষে উচ্ছিষ্টগুলো পুড়িয়ে ফেলা হবে। সেই লক্ষ্যে নেটওয়ার্ক পাইপলাইন স্থাপনের কাজও শিগগিরই শুরু হবে। এটা চালু হলে নদী ও পরিবেশ দূষণ কমে আসবে।

সরকারের উন্নয়ন ও ভালো কাজগুলো মানুষের কাছে তুলে ধরতে গণমাধ্যমের প্রতি আহ্বান জানিয়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের ভালো কাজ মানুষের কাছে নিয়ে যেতে হবে। মানুষ এসে তো আর প্রকল্পে কাজ করবে না, তাদের সরকার বলবে না কাজ করো, তারা যদি উন্নয়ন দেখে সরকারকে সমর্থন করে, তাদের মানসিক সমর্থন আমাদের উৎসাহ জোগাবে। জনগণের মানসিক সমর্থন খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’ মানুষের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবিরাম কাজ করছেন জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু অনেক স্বপ্ন নিয়ে দেশ স্বাধীন করেছিলেন, কিন্তু তিনি তার স্বপ্নপূরণ করতে পারেননি। ঘাতকরা সপরিবারে তাকে হত্যা করেছে। তাই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে তারই মেয়ে শেখ হাসিনা কাজ করে যাচ্ছেন।

এ সময় ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাসকিন এ খান ও দাশেরকান্দি স্যুয়ারেজ ট্রিটমেন্ট প্লান্টের প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মো. মুহসিন আলী মিয়াসহ ওয়াসার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, এ প্রকল্পটির মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৩১৭ দশমিক ৭৭ কোটি টাকা। প্রকল্পের মেয়াদকাল জুলাই ২০১৫ থেকে জুন ২০২২ সাল পর্যন্ত। এ প্রকল্পের মাধ্যমে গুলশান, বনানী, বারিধারা, বারিধারা-ডিওএইচএস, বসুন্ধরা, বাড্ডা, ভাটারা, বনশ্রী, কুড়িল, সংসদ ভবন এলাকা, শুক্রাবাদ, ফার্মগেট, তেজগাঁও, আফতাবনগর, নিকেতন, সাঁতারকুল এবং হাতিরঝিল ও তৎসংলগ্ন এলাকার সৃষ্ট পয়োবর্জ্য পরিশোধন করে বালু নদীতে নিষ্কাশিত হওয়ার মাধ্যমে পানি ও পরিবেশ দূষণ রোধ করা সম্ভব হবে।

 

"