গণিত ও বিজ্ঞানে পিছিয়েছে জার্মানির শিক্ষার্থীরা

প্রকাশ : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

বিভিন্ন দেশের স্কুলশিক্ষার্থীদের মান নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করে অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট, ওইসিডি। এটি পিসা রিপোর্ট নামে পরিচিত। পিসা হচ্ছে ‘প্রোগ্রাম ফর ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট অ্যাসেসমেন্ট’। ২০০০ সালে এটি প্রথম প্রকাশিত হয়। এরপর থেকে প্রতি তিন বছরে একবার এটি বের হচ্ছে। সম্প্রতি ২০১৮ সালের রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। এতে দেখা গেছে, গণিতে এশীয় শিশুদের চেয়ে জামার্নির শিশুরা পেছিয়ে পরেছে।

এবার ৭৯টি দেশের ছয় লাখ স্কুল শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। এই পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সাক্ষরতা, গণিত ও প্রাকৃতিক বিজ্ঞানের ওপর জ্ঞান সম্পর্কে জানার চেষ্টা করা হয়। জার্মানির ২২৬টি স্কুলের পাঁচ হাজার ৪৫১ জন শিক্ষার্থী এই পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল।

প্রকাশিত এ রিপোর্টে দেখা গেছে, জার্মানির শিক্ষার্থীদের মান গড়পড়তার চেয়ে বেশি। কিন্তু সাক্ষরতায় পয়েন্ট কমে ২০০৯ সালের স্তরে চলে গেছে। এ ছাড়া গণিত ও প্রাকৃতিক বিজ্ঞানেও শিক্ষার্থীদের দক্ষতা কমেছে। গণিতের পয়েন্ট ২০১২ সালের স্তরে পৌঁছেছে। আর বিজ্ঞান পৌঁছেছে ২০০৬ সালের লেভেলে। পিসার প্রতিবেদন বলছে, গণিতে শীর্ষে আছে এশিয়ার শিক্ষার্থীরা। এই তালিকায় প্রথম সাতটি দেশ এশিয়ার। এগুলো হচ্ছে চীন, সিঙ্গাপুর, ম্যাকাও, হংকং, তাইওয়ান, জাপান ও কোরিয়া। গণিতের তালিকায় জার্মানির অবস্থান ২০ নম্বরে।

 

"