কানে ইয়ারফোনই কেড়ে নিল প্রাণ

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

নরসিংদীতে কানে ইয়ারফোন লাগিয়ে রেললাইন দিয়ে যাওয়ার পথে ট্রেনে কাটা পড়ে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া জামালপুরে ট্রেনে কাটা পড়া এক অজ্ঞাত বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। প্রতিনিধিদের পাঠানো রিপোর্টÑ

নরসিংদী : নরসিংদী শহরে গত বৃহস্পতিবার সকালে ট্রেনে কাটা পড়ে গোবিন্দ চন্দ্র দাস (১৬) নামের এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। কানে ইয়ারফোন লাগানো অবস্থায় টেনে কাটা পড়ে সে। পুলিশের ধারণা, কানে ইয়ারফোন গুঁজে গান শোনার

কারণে ট্রেনের হুইসেল শুনতে পায়নি গোবিন্দ।

গতকাল সকাল সাড়ে ৮টার দিকে শহরের পুরানপাড়া এলাকা থেকে কিশোর গোবিন্দের খ-িত লাশ উদ্ধার করে রেলওয়ে পুলিশ। ঘটনাস্থল নরসিংদী রেলস্টেশন থেকে চার কিলোমিটার দূরে। নিহত গোবিন্দ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের বারদী গ্রামের বলাই চন্দ্র দাসের ছেলে। সে বারদী এলাকার একটি স্বর্ণকারের দোকানে তিন মাস ধরে কাজ করছিল।

নিহত কিশোরের স্বজন ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে রেললাইনে লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে রেলওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

রেলওয়ে পুলিশ বলছে, রাতের কোনো একসময় ট্রেনের নিচে কাটা পড়েছে গোবিন্দ। ঘটনাস্থলে একটি ভেঙে যাওয়া মোবাইল ফোন ও লাশের কানে ইয়ারফোন দেখতে পাওয়া গেছে। ওই মোবাইল ফোনের সিম অন্য মোবাইল ফোনে ব্যবহার করে একাধিক নম্বরে কল দিয়ে কিশোরের পরিচয়ের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে। দুপুরে পরিবারের লোকজন গোবিন্দের লাশ শনাক্ত করেছেন।

নরসিংদী রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির এসআই ফিরোজ আহমেদ বলেন, কানে ইয়ারফোন থাকায় ধারণা করা হচ্ছে, ট্রেনের শব্দ বা হুইসেল ওই কিশোর শুনতে পায়নি। ময়নাতদন্ত শেষে গোবিন্দের লাশ পরিবারের লোকজনের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

জামালপুর : জামালপুর শহরে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাতপরিচয় এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। জামালপুর জিআরটি থানার ওসি তাপস চন্দ্র প-িত জানান, শহরের শেখেরভিটা রেলক্রসিং এলাকায় গতকাল সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তির পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ।

ওসি তাপস বলেন, জামালপুর থেকে ছেড়ে আসা দেওয়ানগঞ্জগামী কমিউটার ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই তিনি নিহত হন। খবর পেয়ে রেলওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জামালপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

"