ভারতের অযোধ্যায় শুনানি শেষ

বাবরি মসজিদ মামলায় রায় নভেম্বরে

প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০

পার্থ মুখোপাধ্যায়, কলকাতা থেকে

গতকাল বুধবার বিকাল ৫টায় শেষ হওয়ার কথা ছিল, তার এক ঘণ্টা আগেই শেষ হয়েছে অযোধ্যা জমি বিতর্ক ও বাবরি মসজিদ মামলার শুনানি। ৩৯ দিন টানা শুনানির শেষে ৪০তম দিনে শুনানি শেষের নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। সেই মতোই বুধবার শুনানি শেষ হয়েছে। তবে বুধবারই রায় জানায়নি সুপ্রিম কোর্টের সাংবিধানিক বেঞ্চ। কমপক্ষে ২৩ দিন পর রায় শোনানো হবে বলে জানা গেছে। প্রসঙ্গত, আগামী ১৭ নভেম্বর অবসর নিচ্ছেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। রায় দান আপাতত স্থগিত রেখেছে সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ।

বুধবার যে এই শুনানি পর্ব শেষ হতে পারে তা সকালেই জানিয়ে দিয়েছিলেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। শুনানির জন্য আরো কিছুটা সময় চেয়েছিলেন এক আইনজীবী। তার পরিপ্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘যথেষ্ট হয়েছে। আজ বিকাল ৫টায় অযোধ্যা শুনানি শেষ হতেই হবে।’ মামলায় নিজেদের বক্তব্য তুলে ধরতে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছিল হিন্দু মহাসভা। কিন্তু শীর্ষ আদালত সেই আবেদন নাকচ করে দেয়। প্রধান বিচারপতি বলেন, মামলার সঙ্গে যুক্ত সব পক্ষকে আগেই প্রত্যেকের জন্য বরাদ্দ সময়ে বক্তব্য শেষ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। অন্যদিকে, অযোধ্যায় আরও কিছু বিধিনিষেধ জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট। অনুমতি ছাড়া ওই এলাকায় ড্রোন ওড়ানো নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ ছাড়াও ওই জেলায় নৌকা চালানো, বাজি তৈরি এবং বিক্রিতেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের চিহ্নিত করে দেওয়া এলাকায় দোকান ও গোডাউন খোলা রাখার ক্ষেত্রে বিধি নিষেধ দেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তার স্বার্থে ১৪ অক্টোবর থেকে আগামী ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে ওই এলাকায়।

মঙ্গলবার দুই পক্ষের আইনজীবীদের মধ্যে বাদানুবাদের সূত্রপাত মহন্ত সুরেশ দাসের আইনজীবী কে পরাশরণের সওয়ালকে কেন্দ্র করে। তিনি বলেন, সম্রাট বাবর ভারত জয়ের পর রামের জন্মস্থানে মসজিদ নির্মাণ করে ঐতিহাসিক ভুল করেছিলেন। এখন ওই ভুল সংশোধনের প্রয়োজন। তার বক্তব্যের বিরোধিতা করেন সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের আইনজীবী রাজীব ধবন। তিনি বলেন, এটা নতুন যুক্তি। অন্য মামলাগুলোতেও এই বিষয়টি ওরা বলতে পারতেন। এর জবাব দেওয়ার অধিকার আমার রয়েছে।

"