আবরার হত্যা নিয়ে নোংরা রাজনীতিতে মেতেছে বিএনপি

তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশ : ১২ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বুয়েটের ছাত্র হত্যা নিয়ে পানি ঘোলা করলে, এটিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করলে তা প্রতিহত করা হবে। ছাত্রছাত্রীদের আবেগের সঙ্গে আমি একাত্মতা পোষণ করছি। গতকাল শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত ‘বিএনপিসহ কুচক্রী মহলের নানামুখী দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ’ শীর্ষক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আবরার ফাহাদ হত্যা নিয়ে বিএনপি নোংরা রাজনীতিতে মেতেছে। তারা এটিকে নিয়ে পানি ঘোলার চেষ্টা করছে। তারা আগে সফল হয়নি, এবারও সফল হবেন না, আগামীতেও হবে না। বিএনপির উদ্দেশে তিনি বলেন, যারা গলা ফাটান তাদের বলব, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) মেয়েদের মিছিলে হামলা হয়, মেয়েদের শ্লীলতাহানি হয়। তখন খালেদা জিয়া কী করেছিলেন? তখন কিছুই করেননি। ঢাবিতে যখন ছাত্রদলের দুই গ্রুপের গুলিতে সনি মারা যায়। বুয়েটের মেধাবী শিক্ষার্থী সনির যখন মৃত্যু হলো, তখন কী দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছিলেন? নেননি। এভাবে ঢাবিতে অনেক ঘটনা ঘটেছে। সেই ঘটনার পরে ছাত্রদল কিংবা বিএনপি কোনো ধরনের ব্যবস্থা নেয়নি।

হাছান মাহমুদ বলেন, বুয়েটের একজন ছাত্র (আবরার ফাহাদ) নৃশংসভাবে হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছে। এটি ন্যক্কারজনক ও নৃশংস ঘটনা। এর প্রতিবাদ আমরা প্রথম থেকেই করেছি। কেউ দাবি তোলার আগেই আমরা সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, তাদের (হত্যাকারী) যেন সর্বোচ্চ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয়, সেজন্য সরকার বদ্ধপরিকর। তিনি বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে, পুলিশের পক্ষ থেকে যা যা করণীয়, সবকিছু করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে যাদের যুক্ত বলে মনে হয়েছে, প্রায় সবাইকে গ্রেফতার করা হয়েছে, ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ফাহাদ নিহত হয়েছে, আমার সন্তান নিহত হয়েছে। আমাদের সন্তান নিহত হয়েছে। এটা নিয়ে তারা (বিএনপি) নোংরা রাজনীতিতে মেতেছে। বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদের উপদেষ্টা ও আওয়ামী লীগের উপকমিটির আন্তর্জাতিকবিষয়ক সদস্য ব্যারিস্টার জাকির আহম্মদের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, দলের কেন্দ্রীয় উপকমিটির নির্বাহী সদস্য শেখ মোহাম্মদ আলী প্রমুখ।

 

"