বিশ্ব কারুশিল্প শহরের মর্যাদায় সোনারগাঁ

প্রকাশ : ১২ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

বিশ্ব কারুশিল্প শহরের মর্যাদা পেয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলার ঐতিহাসিক সোনারগাঁ উপজেলা। এর আগে জামদানি উৎসব আয়োজনের মূল অনুষঙ্গ হিসেবে বিশ্ব কারুশিল্প পরিষদের (ডব্লিউসিসি) কাছে সোনারগাঁকে কারুশিল্প শহরের মর্যাদা দিতে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়েছিল। বাংলাদেশ কারুশিল্প ফাউন্ডেশন ও জামদানি উৎসবের আয়োজক বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে এ আবেদন করা হয়। অবশেষে মিলেছে সেই স্বীকৃতি।

বেঙ্গল ফাউন্ডেশন জানায়, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আবেদনের পর গত সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ডব্লিউসিসির বিচারক দল সোনারগাঁ এসে ঘুরে যান। এর পর জামদানি ও তাঁতশিল্পের জন্য সোনারগাঁকে বিশ্ব কারুশিল্প শহরের মর্যাদা দেওয়ার চিঠি তাদের হাতে পৌঁছায়। এর মধ্য দিয়ে এ-ই প্রথম বাংলাদেশের কোনো স্থান বিশ্ব কারুশিল্প শহরের মর্যাদা লাভ করল। ফলে বাংলাদেশ সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় সোনারগাঁয়ের জন্য এই গৌরব বয়ে আনল।

বেঙ্গল ফাউন্ডেশন আরো জানায়, বিশ্ব কারুশিল্প শহরের মর্যাদা পাওয়ায় জামদানি শিল্পের পীঠস্থান হিসেবে সোনারগাঁয়ের সুনাম ও কৃতিত্ব বিশ্বদরবারে প্রতিষ্ঠিত হবে। একই সঙ্গে উন্মোচিত হবে ক্রিয়েটিভ ট্যুরিজমের দ্বার। বিস্তৃত হবে স্থানীয় উদ্ভাবনী শক্তি, মেধা ও অভিজ্ঞতার পরিধি। বেঙ্গল ফাউন্ডেশন আরো বলছে, সোনারগাঁয়ের স্বীকৃতি জাতীয়, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অভিজ্ঞতা ও কৌশল বিনিময়ের ক্ষেত্র তৈরি করবে। একই সঙ্গে এটি ভারতের মহাবলিপুরম (পাথর খোদাই) ও জয়পুর (গহনা), চীনের ফুশিন (অ্যাগেট), থাইল্যান্ডের সাখননাখন (ইন্ডিগোডাই), ডেনমার্কের বর্নহোম (সিরামিক), ইরানের কারপোরগান (মৃৎশিল্প) ও ইসফাহানসহ বিশ্বের অন্যান্য কারুশিল্প শহরের সঙ্গে সহযোগিতা, অংশীদারিত্ব ও বিনিময়ের অভিনব সুযোগ সৃষ্টি হবে।

 

"