এডিবির সেমিনারে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

মান ঠিক রেখে প্রকল্পের কাজ যথাসময়ে শেষ করতে হবে

প্রকাশ : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, বিভিন্ন প্রকল্পের পরিচালকের বিষয়ে মন্ত্রণালয় থেকে অভিযোগ আসে। এসব অভিযোগ যেন না আসে, সে জন্য প্রকল্প পরিচালকদের প্রকল্প সঠিক সময়ে বাস্তবায়ন করতে হবে এবং কাজের মানও ঠিক রাখতে হবে। গতকাল রোববার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে এশিয়ান ডেভেলমেন্ট ব্যাংক (এডিবি) আয়োজিত তিন দিনব্যাপী ‘দ্রুত প্রকল্প বাস্তবায়ন’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) অতিরিক্ত সচিব (এডিবি শাখার প্রধান) ফরিদা নাসরিন, এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ, ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) তাকসিম এ খান ও এডিবির বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।

এশীয় উন্নয়ন ব্যাংককে (এডিবি) বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, ‘বিদেশি সংস্থা কিংবা কোনো রাষ্ট্র বিনিয়োগ করলে তাদের টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সুন্দর অতীত রয়েছে। আমাদের জনবল রয়েছে। রয়েছে ভূমিও। আমাদের এখন বিনিয়োগ প্রয়োজন।’

বিভিন্ন প্রকল্পের পরিচালকদের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, যখন কোনো একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়, তখন এটির যথাসময়ে বাস্তবায়ন, মান ঠিক রাখাও গুরুত্বপূর্ণ। মানসম্পন্ন পরিকল্পনা ও নকশা গুরুত্বপূর্ণ। সেই সঙ্গে প্রকল্পের খরচ কমানোও অপরিহার্য।

দেশের নানা খাতে দুর্নীতির বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশে দুর্নীতি আরেকটি বড় সমস্যা। আপনারা জানেন, দেশ সব সময় গণতান্ত্রিকভাবে শাসিত হয়নি। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশে অরাজক পরিস্থিতির তৈরি হয়েছিল। অনেক অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটেছে আমাদের সমাজে। এর ফলে প্রতিটি জায়গায় সুশাসনের ঘাটতি রয়েছে, দুর্নীতি রয়েছে। কিন্তু আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আশাবাদী যে, তিনি এই দুর্নীতিকে রুখবেন। এ কাছে তিনি অবশ্যই সফল হবেন।’

এ সময় বিভিন্ন প্রকল্প পরিচালকের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। বলেন, নিয়মিতই বিভিন্ন মন্ত্রণালয় থেকে অভিযোগ আসে প্রকল্প পরিচালকদের বিরুদ্ধে। আশা করি, প্রকল্প পরিচালকরা আরো বেশি যতœশীল হবেন তাদের কাছে। যখন কোনো প্রকল্পের পরিচালক হিসেবে কেউ দায়িত্ব গ্রহণ করবেন, তার উচিত সেই প্রকল্প ঠিক সময়ে বাস্তবায়ন করা, কাজের মানও ঠিক রাখতে হবে।

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। এখন আমাদের গড়ে মাথাপিছু আয় প্রায় দুই হাজার ডলার। আমাদের জিডিপির প্রবৃদ্ধি অনেক বেড়েছে। খাদ্য ঘাটতি কমেছে, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন হয়েছে। বিদ্যুৎ উৎপাদন বেড়েছে। আমরা লক্ষ্যমাত্রার আগে উন্নয়নশীল দেশে পৌঁছে গেছি। ২০৪১ সালের আগেই উন্নত বাংলাদেশ হবে।’

ফরিদা নাসরিন বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল সোনার বাংলাদেশ গড়ার। তিনি সে লক্ষ্যেই দেশ স্বাধীন করেছিলেন। কিন্তু তিনি সে লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেননি। তার সেই স্বপ্ন পূরণে কাজ করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ আমরা উন্নয়নশীল দেশে পৌঁছে গেছি। খুব দ্রুতই উন্নত দেশে পৌঁছাব।’

এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ বলেন, গত ১০ বছরে বাংলাদেশের দ্রুত অগ্রগতি হয়েছে। এ ক্ষেত্রে গত ১০ বছরে গড় অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির হার ৬ দশমিক ৫ শতাংশ। প্রবৃদ্ধির দিক থেকে বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে মডেল বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি আরো বলেন, ‘এডিবি বাংলাদেশকে অর্থনৈতিকভাবে অনেক সহযোগিতা করেছে। এখনো বিভিন্ন প্রকল্পের অর্থায়নে আছে। ভবিষ্যতে এ সহযোগিতা আরো বাড়বে। বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাকÑ সেই প্রত্যাশা করছি।’

 

"