স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

খাল উদ্ধারের পর ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট চালু হবে

প্রকাশ : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী বলেছেন, ঢাকা শহরে অনেকগুলো খাল ও লেক ছিল। যেগুলো নানা কারণে দখল-দূষণ ও ভরাট হয়েছে। এখন হাতিরঝিলকে উদ্ধারের পর অবকাঠামো নির্মাণ করে সুন্দর রূপ দেওয়া হয়েছে। এমনিভাবে বাকি খাল ও লেকগুলো দখল উচ্ছেদ এবং ভরাট হওয়া জায়গাগুলো খনন করার ব্যবস্থা করতে হবে। খালগুলো উদ্ধার করা গেলে হাতিরঝিলের মতো ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট চালু করা হবে। এসব ব্যবস্থা চালু করা গেলে নাগরিকের সময় এবং অর্থ কম খরচ হবে। একই সঙ্গে সড়কে গাড়ির সংখ্যা কমে গিয়ে ট্রাফিকের ওপর চাপ কমবে। এ জন্য তিনি সবার সহযোগিতা কামনা করেন। গতকাল শনিবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে ঢাকা ওয়াসা আয়োজিত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বিল কালেকশন অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন। মো. তাজুল ইসলাম বলেন, দুই দশক আগে রাজধানীতে এত মানুষ ছিল না। নদীগুলোতেও এত লঞ্চ-স্টিমার ছিল না। ময়লা-আবর্জনাও এত বেশি ছিল না। শহরে মানুষ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বর্জ্যও বেড়েছে। দূষিত হয়েছে খাল ও নদীগুলো। আগে এগুলো নিয়ে কেউ মাথা ঘামায়নি, কারণ এত দূষণ ও দখল হয়নি। এখন মানুষ বেড়েছে এবং দূষণ ও দখল বেড়েছে। তাই বিষয়গুলো নিয়ে এখন পরিকল্পনা করে কাজ হচ্ছে। আমদের লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে নদী, খাল ও লেকগুলো দখল-দূষণমুক্ত রাখতে হবে। সবমিলিয়ে আমাদের আরো সচেতন হতে হবে।

তিনি আরো বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে এডিস মশা আমাদের বিবেককে নাড়া দিয়েছে। ফেব্রুয়ারি-মার্চ মাস থেকে মশা নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করেছি। সনাতন পদ্ধতিতে কাজ হওয়ায় মশা নিয়ন্ত্রণে দেরি হয়েছে। এ কাজে শুধু আমরাই অনবিজ্ঞ তা নয়, আমেরিকা, সিঙ্গাপুরসহ পৃথিবীর অনেক দেশ ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খাচ্ছে। ওই দেশগুলোতেও হাজার হাজার মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারাও গেছেন। যদি আমরা নাগরিকরা আগে থেকে সচেতন হতাম, তাহলে ডেঙ্গুর পরিস্থিতি এ রকম পর্যায়ে যেত না।

অনুষ্ঠান শেষে ১০ ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীকে বিল কালেকশন অ্যায়ার্ড পুরস্কার দেওয়া হয়। তার হলেন ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী এস এম মাঈনুদ্দিন চৌধুরী, প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেডের নির্বাহী রেজাউল করিম, পূর্বালী ব্যাংক লিমিটেডের নির্বাহী হালিম চোধুরী, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের নির্বাহী কাজী উসমান আলী, ব্যাংক এশিয়ার নির্বাহী সাজ্জাদ হোসাইন, ওয়ান ব্যাংক লিমিটেডের ফখরুল আলম, এক্সিম ব্যাংকের ড. মোহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া, মার্সেন্টাইল ব্যাংকের কামরুল ইসলাম চৌধুরী এবং ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের নির্বাহী সাখাওয়াত জামিল।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দিন আহমদ বলেন, জলাবদ্ধতা রোধে পানি নিষ্কাশ নিয়ে ঢাকা ওয়াসা কাজ করছে। একই সঙ্গে স্যুয়ারেজ সিস্টেম নিয়েও কাজ করছে। সুপেয় পানির সমস্যা সমাধানে ঢাকা ওয়াসা উল্লেখযোগ্য অবদান রেখে চলছে।

ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) তাকসিম এ খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা ওয়াসার প্রধান প্রকৌশলী কামরুল হাসানসহ ঢাকা ওয়াসার কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন ব্যাংকের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

"