মুক্তিযোদ্ধাদের ডিজিটাল সনদ দেবে সরকার

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

প্রকাশ : ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

সংসদ প্রতিবেদক

সংসদে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, সরকারের করা সর্বশেষ তালিকা অনুযায়ী দেশে বর্তমানে গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা ২ লাখ ৩৫ হাজার ৪৬৭ জন। এসব বৈধ মুক্তিযোদ্ধাদের অনুকূলে শিগগিরই দেশব্যাপী একদিনেই একযোগে ডিজিটাল সনদ দেওয়ার কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ তথ্য জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিকালে সমাপনী এ অধিবেশন শুরু হয়।

সংশ্লিষ্ট এমপির ওই প্রশ্নের জবাবে আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, দেশে মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা ২ লাখ ৩৫ হাজার ৪৬৭ জন; এর মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৪৫২৪৫ জন, চট্টগ্রামে ৩৪৩৭৪ জন, ময়মনসিংহে ১২৯০৭ জন, খুলনায় ২৭৫৮২ জন, রাজশাহীতে ১৯৩৭০ জন, রংপুরে ১৬৩৬৮ জন, সিলেটে ১২৭২৭ জন এবং বরিশালে ১৫৩০২ জন। আর অন্যান্য গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধা ৫১৫৯২ জন। এসব মুক্তিযোদ্ধাদের অচিরেই দেশব্যাপী একদিনে একযোগে ডিজিটাল সনদ প্রদান করা হবে।

দিদারুল আলমের এক প্রশ্নের জবাবে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, দেশে খেতাবপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা দুজন। তবে গেজেটভুক্ত নারী মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা ৩২২ জন। রতœা আহমেদের এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, ১৯৭১ সালে ৯ মাসব্যাপী স্বাধীনতা যুদ্ধে সারা দেশে ৩০ লাখ গণশহীদদের চিহ্নিত করা এখনো সম্ভব হয়নি। ভবিষ্যতে এ লক্ষ্যে সরকার কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী সব বীর মুক্তিযোদ্ধার তথ্য সংগ্রহ করে ডাটাবেজ তৈরি করে বর্তমানে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। এ তালিকার বাইরে যদি কোনো মুক্তিযোদ্ধা থেকে থাকেন তা চিহ্নিত করার কাজ চলছে। এটি সম্পন্ন হলে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার তালিকা প্রকাশ সম্ভব হবে।

মন্ত্রী বলেন, এ তালিকা অনুযায়ী বর্তমানে ৫ হাজার ৭৯৫ জন মুক্তিযোদ্ধার নাম ঠিকানা সংবলিত পূর্ণাঙ্গ তথ্য ওয়েবসাইটে রয়েছে। এর মধ্যে শহীদ বেসামরিক গেজেটভুক্ত ২ হাজার ৯২২ জন, সশস্ত্র বাহিনী শহীদ ১ হাজার ৬২৮, শহীদ বিজিবি ৮৩২ জন এবং শহীদ পুলিশ ৪১৩ জন।

মাহফুজুর রহমানের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ও অন্যান্য বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধিস্থল সংরক্ষণ ও উন্নয়ন প্রকল্পে ৪৬১ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে ২০ হাজার সমাধিস্থল সংরক্ষণ ও উন্নয়ন করা হবে। তিনি বলেন, ৪৪২ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে সারা দেশে ২৮১টি বধ্যভূমি সংরক্ষণ ও উন্নয়ন করা হবে।

 

"