নেতাজি বিতর্কে পিছু হটল কেন্দ্র

প্রকাশ : ২০ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

পার্থ মুখোপাধ্যায়, কলকাতা থেকে

নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর মৃত্যুদিন নিয়ে বিতর্কিত টুইট ডিলিট করে দিয়েছে ভারতের প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো। বিতর্ক নিয়ে যদিও সংস্থার পক্ষে কোনো বিবৃতি বা টুইট এখনো দেওয়া হয়নি। ৭৪ বছর আগে ১৮ আগস্ট নিখোঁজ হয়েছিলেন আজাদ হিন্দু ফৌজের নেতা নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু। এ উপলক্ষে স্বাধীনতা সংগ্রামী নেতাজিকে শ্রদ্ধার্ঘ জানিয়ে টুইট করে প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো। এর জেরেই তীব্র বিতর্ক দেখা দেয়। টুইট করে কেন্দ্রীয় বক্তব্যের বিরোধিতা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেন্দ্রীয় সরকারকে তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন, ১৮ আগস্ট তাইওয়ানের তাইহুকু বিমানবন্দরে বিমান দুর্ঘটনার পর নিখোঁজ হয়েছিলেন নেতাজি। এরপর কী হয়েছিল, তা কারোরই জানা নেই বলে মনে করিয়ে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি নেতাজি নিয়ে সত্য উদ্ঘাটনের দাবি তুলেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। একই সুর নেতাজির নাতি তথা বিজেপি নেতা চন্দ্র কুমার বসুরও। প্রধানমন্ত্রীর দফতর, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর ডিরেক্টর জেনারেলের উদ্দেশে টুইটে নেতাজির সত্য উদ্ঘাটনের কথা বলেছেন তিনি। বিতর্কের কারণেই এবার নেতাজির টুইট ডিলিট করে দিয়েছে প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো। প্রসঙ্গত, কংগ্রেস, গুজরাট ও বিজেপির পক্ষেও ১৮ আগস্টকে নেতাজির মৃত্যুদিবস উল্লেখ করে টুইট করা হয়েছিল। যদিও তাতে ভাষার তারতম্য ছিল। পরে যদিও বিজেপির টুইটার হ্যান্ডেল থেকে সেই টুইট ডিলিট করে দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, নেতাজির একটি ছবি ও তার উক্তি- তোমরা আমাকে রক্ত দাও, আমি তোমায় স্বাধীনতা দেব, পোস্ট করে ১৮ আগস্টকে মৃত্যুদিন হিসেবে ঘোষণা করা হয়। প্রসঙ্গত, ১৯৪৫ সালের ওইদিনেই তাইহুকু বিমান দুর্ঘটনার মুখে পড়েন সুভাষ চন্দ্র বসু। মনে করা হয়, ওই বিমান দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু হয়েছে। তবে এখনো পর্যন্ত কোনো জোরালো প্রমাণ মেলেনি। বিশেষজ্ঞদের একাংশ মনে করেন, বিমান দুর্ঘটনায় নেতাজি মারা যাননি। যা নিয়ে পরবর্তীকালে একাধিক কমিশনও বসে।

এই ছবি সামনে আসতেই জোর চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। দেশজুড়ে শোরগোল পড়ে গেছে। পিআইবির এই টুইট প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে নেতাজি পরিবারের সদস্য এবং বিজেপি নেতা চন্দ্র বসু মন্তব্য করেছেন, কোথাও একটা ভুল হচ্ছে। কোথাও কোনো ত্রুটি থেকে যাচ্ছে। উল্লেখ্য, সকাল থেকে দিনটিকে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর পুণ্যতিথি হিসেবে উল্লেখ করে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করতে দেখা গেছে অনেক বিজেপি নেতাকে। শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেছেন বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয় বর্গীয়, সম্বিত পাত্র। গতকাল সোমবার সকালে নেতাজির অন্তর্ধান নিয়ে টুইট করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। নেতাজির বিষয়ে জানার অধিকার সব দেশবাসীর রয়েছে বলে টুইটে লেখেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন, আজকের দিনেই ১৯৪৫ সালে নেতাজি তাইওয়ানের তাইহুকু বিমানবন্দর থেকে নিখোঁজ হন। আজও জানি না এরপর কী হয়েছে। দেশমাতৃকার এই বীর সন্তানের বিষয়ে জানার অধিকার সব দেশবাসীর আছে।

 

 

"