পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া

লঞ্চে চাপ ফেরিতে পার হতে মাইকিং

প্রকাশ : ১১ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

মানিকগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি

ঈদে ঘরমুখো মানুষের ঢল নেমেছিল পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে। এ নৌরুটে লঞ্চে যাত্রী পারাপারে হিমশিম খাওয়ায় ফেরিতে পার হওয়ার জন্য মাইকিং করেছে কর্তৃপক্ষ। গতকাল শনিবার দুপুরে ঘাট এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ২০টি লঞ্চ চলাচল করলেও যাত্রী সামাল দিতে হিমশিম খায় বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ। এজন্য লঞ্চ মালিক ও বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ ফেরিতে যাত্রী পার হওয়ার জন্য মাইকিং করে। এদিকে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটের শিমুলিয়া ঘাটে গতকাল সকাল থেকে ঘরমুখো মানুষের উপচেপড়া ভিড় ছিল। লঞ্চ, স্পিডবোট ও ফেরিঘাটেও উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে। সময় বৃদ্ধির সঙ্গে গাড়ির চাপ বাড়তে থাকে।

বরিশালগামী যাত্রী সুমন বলেন, দুপুর ১টার দিকে লঞ্চঘাটে গেলে কর্তৃপক্ষ মাইকে বলছে ফেরিতে পার হতে। কারণ ঘাটে লঞ্চ নেই। সবগুলো লঞ্চ দৌলতদিয়া ঘাটের উদ্দেশে রওনা হয়েছে। সেজন্য বাধ্য হয়ে ফেরিতে নৌপথ পাড়ি দেওয়ার জন্য যাচ্ছি।

রাজবাড়ীগামী যাত্রী সেফালি বলেন, সকাল ৬টায় ঢাকা থেকে রওনা হয়েছি। রাস্তায় কিছু কিছু স্থানে প্রচুর জ্যাম ছিল। এ কারণে দুই ঘণ্টার পথ লেগেছে সাত ঘণ্টা। নদীতে ঢেউ থাকায় বাচ্চাদের নিয়ে ফেরিতে পার হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

বিআইডব্লিউটিএ পাটুরিয়া ঘাটের সহকারী পরিচালক (ট্রাফিক) ফরিদুল ইসলাম বলেন, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ২০টি লঞ্চ দিয়ে যাত্রী পার করা হয়। তবে যাত্রীর বাড়তি চাপ থাকায় ফেরিতে তাদের যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) পাটুরিয়া ঘাট শাখার এজিএম জিল্লুর রহমান বলেন, দুপুরের পর থেকে যাত্রীবাহী পরিবহনের চাপ বেড়েছে। অন্যদিকে কাটা গাড়ির যাত্রীদের চাপ ছিল ঘাট এলাকায়। যাত্রীদের লঞ্চের পাশাপাশি ফেরিতেও পার করা হয়।

সংস্থাটির শিমুলিয়া ঘাটের এই সহকারী মহাব্যবস্থাপক জানান, শুক্রবার থেকে নৌরুটের পরিস্থিতি ভালো থাকায় ফেরি চলাচলে সমস্যা হচ্ছে না। তবে কাল ঈদ, তাই ঘাটে ছোট বড় বিভিন্ন যানবাহনের চাপ বৃদ্ধি পাচ্ছে প্রতিনিয়ত। একই সঙ্গে লঞ্চঘাট ও সি-বোট ঘাটে যাত্রীদের বাড়তি চাপ রয়েছে।

লঞ্চ মালিক সমিতির নেতারা জানান, ধারণ ক্ষমতার অধিক যাত্রী নিয়ে কোনো লঞ্চ যায়নি। এছাড়া স্পিডবোট ঘাটেও যাত্রীদের বাড়তি উপস্থিতি ছিল।

মাওয়া ট্রাফিক পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মো. হেলাল উদ্দিন বলেন, শিমুলিয়া ঘাটের পার্কিং ইয়ার্ডে প্রাইভেট কার ও বাস পারাপারের অপেক্ষায় আছে। ভোর থেকেই যাত্রীবাহী গাড়ির সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে। এছাড়া ট্রাকের একটি দীর্ঘ সারি ঘাট এলাকায় অবস্থান করছে। তবে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যাত্রীবাহী গাড়িকে আগে ফেরিতে উঠতে দেওয়া হচ্ছে। পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, ফেরি চলাচলে বিঘœ না ঘটলে গাড়ির চাপ কমে আসবে।

 

"